বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম সোলাইমান খন্দকারের রুহের মাগফেরাত কামনায় মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত। 

কালীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ইব্রাহিম খন্দকার:
গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের  বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক কালীগঞ্জ রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি ইব্রাহিম খন্দকারের পিতা মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা  সোলাইমান খন্দকারের রুহের মাগফেরাত কামনায় কোরআন খতম- মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর ) বাদ আছর কালীগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির  পক্ষ থেকে এ মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। এসময় রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ইব্রাহিম খন্দকার, সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সহ সকল সদস্যবৃন্দ ও অসংখ্য ধর্মপ্রাণ মুসলমান, মরহুমের পরিবারের লোকজন, আত্মীয় স্বজন, শুভাকাঙ্খি,মুক্তিযোদ্বা,এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ ও সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।
কালীগন্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি আঃ আজিজ বলেন, মরহুম বীর মুক্তিযোদ্বা সোলাইমান খন্দকার খুবই ভাল মানুষ ছিলেন। তিনি দেশ মাতৃকার স্বাধীনতা যুদ্ধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন, আর আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন সার্বভৌমত্ত্ব বাংলাদেশ।
যার ফলে আমরা সবাই আজ স্বাধীন ভাবে এদেশে বসবাস করতে পারছি। বাংলা ভায়ায় কথা বলতে পারছি। কিন্তু তিনি আজ আমাদের মাঝে নেই আল্লাহ পাক ওনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করুন।
রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ-সভাপতি সাংবাদিক  সফিকুল কবির বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম সোলাইমান খন্দকার স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে একটি স্বাধীন দেশ ও লাল সবুজের পতাকা উপহার দিয়ে গেছেন। মুক্তিযোদ্ধারা জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান। মুক্তিযুদ্ধ এ দেশে বারবার হবে না। যারা মুক্তিযুদ্ধ করে লাল সবুজ পতাকার স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়েছে তারা সত্যিকার অর্থে ভাগ্যবান ছিলো। তাদের স্বশ্রদ্ধাভরে জাতী ও দেশ স্বরণ করে আসছে। মিলাদ ও দোয়ায় মরহুম সোলাইমান খন্দকারসহ  অন্যান্য মুক্তিযোদ্বা ও ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন।
সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বলেন,মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলাইমান খন্দকার  সহ অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধারা   এদেশের জন্য যুদ্ধ করে অনেক অবদান রেখে গেছেন। আজ তিনি আর আমাদের মাঝে নেই, আমরা মহান আল্লাহর দরবারে দোয়া করছি  তার যে কোন নেক আমল কে উসিলা করে আল্লাহ যেন জান্নাতবাসী করেন তার জন্য দোয়া চেয়ে মুনাজাত করেন।
উল্লেখ্য,দোয়ার অনুষ্ঠানে মিলাদ ও দোয়া মুনাজাত পরিচালনা করেন মনসুরপুর বায়তুন নূর জামে মসজিদের খতিব  হযরত মাওলানা কাজী ফরিদ উদ্দিন।সব শেষে সকলের মাঝে তবারক বিতরণ করা হয়।

মন্তব্য

মন্তব্য