শ্রীপুরে কৃষক পরিবারের জমি দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
গভীর রাত চারদিক নিস্তবদ্ধ কালো অন্ধকারে মাঝে নিজের ভোগ দখলীয় ৩৫ বছরের অধিক সময়ে থাকা জমি রাতের আধাঁরে দখল হয়ে যায়। খুবদ্রুত তড়িগড়ি করে টিনের ভেড়া দিয়ে ছোট একটি ঘর তৈরী করে। রাতেই দখলে যাওয়া জমিটি ঘটনা শুনে এলাকার মানুষ হতভাগ হয়ে পড়ে। পরে সকালে জমির মালিক পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে জবরদখলে বাঁধা দিয়ে চলে যায়।

গাজীপুরে শ্রীপুরে কৃষক পরিবারের রাতের আধাঁরে ৬৬ শতাংশ জমি দখলের অভিযোগ ওঠেছে প্রতিপক্ষ আজহার আলী ও শামসুল হকের বিরোদ্ধে। গত সোমবার গভীর রাতে উপজেলার তেলিহাটি উইনিয়নের দেওয়ানের চালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কৃষক পরিবারের পক্ষে আব্দুল আলী বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্তরা হলেন,একই এলাকার আজহার বেপারী (৩৩), ওমর ফারুক (৫০),আমিনুল হক (৬০),শাহাবউদ্দিন (৫০),কাজল মিয়া (৩৫),শামসুল হক (৬০),হাবী মিয়া (৪৫) ও কুলসুম আক্তার (৩৫)।
থানার অভিযোগ ও আব্দুল আলীগং জানান তেলিহাটি মৌজার আরএস ৫৪৬ খতিয়ানের ক্রয়কৃত জমি যা আমি ও আমার সহঅংশীদারগন র্দীঘ ৩৫ বছরের অধিক সময় ধরে জমিতে বিভিন্ন প্রকার ফলদ ও বনজ গাছপালা রোপন ও সৃজনে ফসলাদি ফলাইয়া শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে আছি । সম্প্রতি তমির উদ্দিনের ছেলে আজহার বেপারী আমাদের জমি জবরদখল করার জন্য বিভিন্ন সময় অপচেষ্ঠাসহ প্রকাশ্যে খুন জখমের হুমকি দিতে থাকে। গত সোমবার রাতে তার লোকজন নিয়ে দেশীয় অস্ত্র দা, লাঠি নিয়ে আমার ৩১শতাংশ জমিতে ছোট একটি টিনের খোপড়ি ঘর তৈরী করে দখলের নেয়ার চেষ্ঠা চালায়। তার একটু পশ্চিম পাশে আব্দুল কাদির ছেলে শামসুল হক আরো ৩৫ শতাংশ জমিতে চারদিকে সিমানা পিলার দিয়ে তারের ভেড়া দিয়ে দখলে নেয়।

তবে অভিযুক্ত আজহার বেপারী জমিদখলে বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন,আমি পৈত্রিকসূত্রে আরএস ২৭৫০ দাগে রের্কড অনুযায়ী মালিক। অনেক বছর ধরে আমার জমিটি তারা জোড়পূর্বকভাবে বেদখল করে রেখেছিল। আমি এলাকার লোকজন নিয়ে বহুবার জমিটি স্থানীয় আমিন নিয়ে মাপজোক করেছি কিন্তু তারা আমার জমি দেয়নি। পরে আমার জমি বুজে নিয়েছি।

শ্রীপুর থানার অফির্সাস ইনর্চাজ (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান জমি দখলের একটি অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য