দক্ষিন অ লে পর্যটন স্পট হতে পারে সোনার চর

মোঃ নাসির উদ্দিন, গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ
পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের অন্তরগত সর্বদক্ষিণে অবস্থিত সোনারচর। পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটার পরই রয়েছে আরেকটি সমুদ্রসৈকত। যার নাম সোনারচর সমুদ্রসৈকত। জেলা সদর থেকে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার এবং রাঙ্গাবলী উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে এর অবস্থান। বঙ্গোপসাগরের বুকে জেগে ওঠা অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর সোনারচর। সেইসঙ্গে ২০ হাজার ২৬ হেক্টর সংরক্ষিত বনভূমি এবং এই চরে রয়েছে বেশ কয়েক প্রজাতির পশুপাখি বুনো মহিষ, হরিণ,বানর, মেছো বাঘ, সহ বিভিন্ন প্রজাতির পশুপাখি এখানে দেখা যায়। ২০০৪ সালে বঙ্গোপসাগরের তীর ঘেঁষে জেগে ওঠে এ চর। পরে পটুয়াখালী উপকূলীয় বন বিভাগ বনায়ন করে এখানে। এখানে রয়েছে নানা প্রজাতির পশু ও পাখি। ২০১১ সালের ১৬ ডিসেম্বর সংরক্ষিত এ বনভূমি বন্যপ্রাণির জন্য অভয়ারণ্য হিসেবে ঘোষণা করে সরকার। প্রতিদিন শত শত ভ্রমণপিপাসু আসেন এর সৌন্দর্য উপভোগ করতে।

প্রায় ১০ কিলোমিটার লম্বা সমুদ্র সৈকতজুড়ে অসংখ্য লাল কাঁকড়ার বিচরণ লক্ষ্য করা যায়। কাঁকড়ার এ প্রজাতি সামুদ্রিক হলেও চরের বালুমাটিতে বসবাস করে। বালুর গভীরে তৈরি সুড়ঙ্গে দলবেঁধে চলাচল করে। জোয়ারের পানিতে সৈকত যখন ডুবে যায়; তখন ওরা নিরাপদ আশ্রয় নেয় সুড়ঙ্গে। প্রায় ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সমুদ্রসৈকত রয়েছে। সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে- এখানে দাঁড়িয়ে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্থ দেখা যায়। লাল কাঁকড়া সোনারচরের আরো একটি আকর্ষণীয় দিক হলো লাল কাঁকড়া। কিভাবে যাবেন সোনারচরে, ঢাকা থেকে সোনারচর যেতে হলে প্রথমে আপনাকে ল যোগে চরকাজল অথবা রাঙ্গাবালী আসতে হবে ।সেখান থেকে ছোট ল ট্রলার কিংবা স্পীডবোটে চরমোন্তাজ যেতে হবে। চরমোন্তাজ থেকে সোনারচরে যেতে আপনাকে মাত্র ৩ কি:মি পথ পারি দিতেহবে তাহলেই পৌঁছে যাবেন অপরূপ সম্ভাবনাময় সোনারচরে। এছাড়া রয়েছে বন বিভাগের ক্যাম্প। সেখানে কিছুটা কষ্ট হলেও পর্যটকদের থাকার ব্যবস্থা আছে। এছাড়া থাকার জন্য চাইলে চলে যেতে পারেন চরমোন্তাজে। সেখানে বন বিভাগ, স্যাপ বাংলাদেশ ও মহিলা উন্নয়ন সমিতির ব্যবস্থাপনায় রাত যাপনের জন্য বাংলো রয়েছে। এ বিষয়ে চরমোন্তাজ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. হানিফ মিয়া বলেন, দূর দূরন্ত থেকে পর্যটক এসে শান্তিপূর্ন ভাবে মূখরিত পরিবেশে পর্যবেক্ষন করতে পারে। এ ব্যাপারে চরমোন্তাজ ফাড়ি ইনচার্জ মো. আনিসুর রহমান বলেণ, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী পর্যটকদের জন্য সোনার চরে সর্বক্ষন তৎপর আছে।

মন্তব্য

মন্তব্য