ভোলায় নেশাজাতীয় দ্রব্য খাওয়ানের পর অটোচালক কে গলায় রশি দিয়ে হত্যার চেষ্টা


বোরহানউদ্দিন (ভোলা) প্রতিনিধি //

ভোলা বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাচড়া ইউনিয়নের চৌধুরী বাড়ীর সুপারি বাগানে মো: শাকিল (২২) নামে এক অটোচালক কে গলায় রশি লাগিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে ‘একই এলাকার দুই যুবক’ পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে। শাকিলের গ্রামের বাড়ী ভোলা সদরের আলীনগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড। সোমবার রাত অনুমান ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাত দশটার দিকে ভোলার আলীনগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডস্থ মৃত আবু সুফিয়ানের ছেলে অটোচালক শাকিলকে (২২) ভোলার খেয়াঘাট এলাকা থেকে বাঘমারা ব্রীজ ঘুরতে আসার কথা বলে কোমল পানীর সঙ্গে নেশা জাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে সাচড়া ইউনিয়নে নিয়ে আসে একই এলাকার ছেলেরা।
পরে তাকে মারার উদ্দেশ্যে বোরহানউদ্দিন সাচড়া এলাকার চৌধুরী বাড়ির নির্জন সুপারির বাগানে শাকিলকে নিয়ে যায়। ওই যুবকরা তার গলায় রশি লাগানোর সময় জ্ঞান ফিরে আসে। এ সময় তার ডাকচিৎকারে সুপারি বাগানের পাহারাদার স্থানীয় বাসিন্দা মান্নান গাজী এবং নুরনবী তাকে মূমুর্ষু অবস্থা উদ্ধার করে। পরে থানা পুলিশকে খরব দিলে বোরহানউদ্দিন থানার এসআই শফিকুল নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
মো: শাকিল জানান, সন্ধ্যায় আমার এলাকার দুই ভাই বললো চল আমরা বাঘমারা ব্রীজ যাব। আমি বললাম চিনি না। তারা দুই জন বললো আমরা চিনি চল। বাঘমারা ব্রীজ এসে আমাকে কি জানি টাইগারের সাথে মিশিয়ে খাওয়াইয়া দিচ্ছে। খাওয়ানের পর আমি অচেতন হয়ে যাই। আমার অটোবাইক ওরা চালায়। হঠাৎ জ্ঞান ফিরে দেখি আমার গলায় রশি লাগিয়ে অন্ধ্যকারের মধ্যে আমাকে টেনে হেচড়ে সুপারির বাগানের দিকে নিয়ে যাচ্ছে ওরা। আমি ডাক চিৎকার দিলে সুপারি বাগান থেকে লোক আসলে ওরা আমাকে ফেলে পালিয়ে যায়।
এব্যাপারে বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইন-চার্জ ম. এনামুল হক জানান, খবর পেয়ে শাকিল কে উদ্ধার করে রাতেই তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সে এঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ দেয় নি।

মন্তব্য

মন্তব্য