গলাচিপায় খোলা আকাশের নিচে জীবন যাপন করছে জাকির হাওলাদার

মোঃ নাসির উদ্দিন,পটুয়াখালী।
পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার গোলখালী ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ডের মৃতঃ সুরাত আলী হাওলাদারের ছেলে মোঃ জাকির হাওলাদার(৪৩)। গত ২৫ বছর যাবৎ জেলের কাজ করে আসেন। এই যাবৎ কোন সরকারি বেসরকারি অনুদান পায়নি। ৭ বছর আগে ১০ লক্ষ টাকার ফিসিং বোর্ড ডুবে যাওয়ায় মধ্য সাগরে। কোন এক রকমের ১০ জন স্টাপ সহ জীবন নিয়ে বাচলেন জাকির হাওলাদার। তার পরে কোন মতে মানুষের বোর্ডে কাজ করে জীবন জিবিকা নির্বাহ করে। জাকির হাওলাদারের শেষ সম্বল তার পত্তিক সম্পত্তি টুকু বিক্রয় করে এবং পটুয়াখালীর মৎস্য ব্যবসায়ী নান্নু মিয়ার কাছ থেকে ৩ লক্ষ, অন্যান ব্যক্তির কাছ থেকে মোট ১৬ লক্ষ টাকা দিয়ে আবার জীবন যুদ্ধে পারি দিলেন। এব্যপারে জাকির হাওলাদার প্রতিবেদককে জানায় আমি ১৬ লক্ষ টাকা দিয়া একটি ফিসিং বোর্ড তৈরি করি। ফিসিং বোর্ড তৈরি করিয়া মাঝি মাল্লা দিয়ে ১টি বছর ব্যবসাটিকে দার প্রান্তে দাড়াতে চাইলেও পারছি না। বিধির নির্মম পরিহাস। কথাগুলো বলে প্রতিবেদকের কাছে বলে কান্নায় ভেঙ্গে পরে জাকির হাওলাদার। সাংসারিক সংকট ও সমস্যা থাকার কারনে আমার জীবনে ভেসে আসে এক বড় বন্যা। এব্যপারে ২নং গোলখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ নাসির উদ্দিন উদ্দিন হাওলাদার তিনি বলেন, যে আসলে জাকিরের বিষয়টি একটি মর্মান্তিক ঘটনা। ঘটনাটি আমি সুনেছি আমি বিষয়টি দেখব।

মন্তব্য

মন্তব্য