রাজাপুরে ওয়ার্কশপ শ্রমিকরা নিরাপত্তা সরঞ্জাম ছাড়াই ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে

মোঃ সাইদুল ইসলাম, রাজাপুর (ঝালকাঠি) প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে নিরাপত্তা সরঞ্জাম ছাড়াই ঝুঁকি নিয়ে ওয়ার্কশপ গুলোতে কাজ করছে প্রায় দুই শতাধিক শ্রমিক। বিভিন্ন ভারী ও ঝুঁকিপূর্ন কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কোনো সুস্থ কর্মপরিবেশ নেই। অধিকাংশ ক্ষেত্রে কোনো ধরনের নিরাপত্তা সরঞ্জাম ছাড়াই কাজ করছেন শ্রমিকরা। এতে একদিকে যেমন তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে, অন্যদিকে অনিশ্চয়তায় রয়েছে কর্মরত এসব শ্রমিকের পরিবার। উপজেলায় রয়েছে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ টি ওয়ার্কশপ। এসব ওয়ার্কশপে ঝুঁকিপূর্ন কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কর্মপরিবেশ নিয়ে কোনো নজরদারি নেই মালিকদের।
ওয়ার্কশপ শ্রমিকরা জানান, আমরা শ্রমিক। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজের সঙ্গে নিয়োজিত । স্বাস্থ্যঝুঁকি থাকা সত্বেত্ত কোনো ধরনের নিরাপত্তা সরঞ্জাম দেয়া হয় না মালিকের পক্ষ থেকে । দুর্ঘটনায় আহত হলেও মালিক পক্ষ প্রাথমিক চিকিৎসার পর আর কোনো খোঁজ খবরও নেয় না। শ্রমিক স্বার্থ বা অধিকার আদায়ের জন্য কোনো সংগঠন গড়ে উঠতে দেয়া হয়নি। সংগঠন করতে চাইলেও মালিকের পক্ষ থেকে বাধা এবং চাকরি থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়। যার কারনে আমরা আমাদের প্রাপ্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছি।
উপজেলার গালুয়া এলাকার ওয়র্কশপ শ্রমিক মোঃ উজ্জল জানান, গত প্রায় এক বছর আগে ওয়র্কশপে কাজ করার সময় আমার চোঁখে আঘাত লাগে, আঘাত লাগায় আমার একটি চোঁখ নষ্ট হয়ে গেছে। মালিক পক্ষ প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেও পরে আর তেমন সহযোগীতা করে নাই। পরিবারের কথা চিন্তা করে ও জীবনের তাগিদে একটি চোঁখ নিয়ে বর্তমানেও ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি।
এবিষয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয় অধিনে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের রবিশাল আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-মহাপরিদর্শক হিমন কুমার সাহা বলেন, “ওয়ার্কশপে শ্রমিকদের কাজে নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার করার জন্য ওয়ার্কশপ মালিকদের চিঠি দেওয়া হয়েছে। এর পরও যদি তারা শ্রমিকদের কাজে নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যবহার না করে তা হলে আইন গত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আরো বলেন, কোনো শ্রমিক কাজ করার সময় আহত হলে আর্থিক অনুদান দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।”

মন্তব্য

মন্তব্য