শিশুদের মাতৃদুগ্ধ পান বাড়লে বিশ্বে প্রতিদিন ১শ কোটি ডলার সাশ্রয় হবে

অনলাইন ডেস্ক// বিশ্বের শিশুরা যদি অধিকমাত্রায় মাতৃদুগ্ধ পান করার সুযোগ পান তাহলে বছরে বেছে যাবে সাড়ে ৩৬ হাজার কোটি ডলার। বিশ্বের অর্থনীতিতে এ অর্থযোগ হওয়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন শিশু লালন পালনে বরং মায়েকে আরো নার্সের সহায়তা বাড়ানো প্রয়োজন। কানাডা ও এশিয়ার একদল গবেষক বলছেন, মায়েরা যদি শিশুদের দীর্ঘদিন বুকের দুধ খাওয়ান তাহলে কম করে হলেও বছরে সাশ্রয় হবে ৩৪১ বিলিয়ন বা ৩৪ হাজার ১শ ডলার। সেই সাথে শিশু নানা জটিল রোগ থেকে মুক্তি পেয়ে অকাল মৃত্যু থেকেও বেঁচে যাবে। ডেইলি সাবা

‘কস্ট অফ নট ব্রেস্টফিডিং’ নামে অনলাইনে বলা হচ্ছে ৬ বছরের গবেষণায় দেখা গেছে মায়ের বুকের দুধপান শুধু যে মানবাধিকার তা নয়, এটি অর্থনীতিতে সমৃদ্ধি আনে ও শিশুদের এমন সব পুষ্টি যোগায় যা অন্য খাবার থেকে আসে না। এটি শিশুর অন্যতম জীবন রক্ষাকারী। কানাডার স্বাস্থ্য অর্থনীতি বিশেষজ্ঞ ডিলান ওয়াল্টার্স এ মন্তব্য করেন। এ অনলাইনটি ১শ দেশের সরকার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মাতৃদুগ্ধ পানের পক্ষে প্রচারণার জন্যে কাজ করছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’ বলেছে শিশুর জন্মের প্রথম ৬ মাস তার জন্যে মাতৃদুগ্ধ অবশ্যই পান করানো উচিত। যা শিশুকে ডায়রিয়া ও নিউমেনিয়া থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। কিন্তু বিশ্বের ৪০ শতাংশ শিশু মাত্র মাতৃদুগ্ধ পান করার সুযোগ পায়। মাতৃদুগ্ধ পান করাতে পারলে বছরে ৮ লাখ ২০ হাজার শিশুর প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হত। ইসলাম ধর্মে অন্তত আড়াই বছর পর্যন্ত মাতৃদুগ্ধ পান করানোর পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য