গলাচিপায় কৃতি সাংবাদিক আলতাফ মাহামুদের সমাধি নদী ভাঙ্গনের কবলে, দুই বছরেও হয়নি কোন উদ্যোগ  ! 

মু., জিল্লুররহমান জুয়েল, পটুয়াখালী।
পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলা নদী বেষ্টনী দ্বীপাঞ্চল হওয়ায়  প্রতিটি ইউনিয়ন ভাঙ্গন কবলিত থাকলেও এর মধ্যে  একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন হল ৬নং পারডাকুয়া। এই ইউনিয়নের তিনটি গ্রাম হল রামনাবাদ নদী ঘেষা, আটখালী,ডাকুয়া ও হোগলবুনিয়া।
এলাকাবাসীরা জানায় নদীর  স্রোতের তীব্রতা এতই প্রকট প্রায় সারা বছর চলে নদী ভাঙ্গন কম বেশি হতেই থাকে,  আর বর্ষা আসলেই ভাঙ্গনের তীব্রতা আরও বেরে যাওয়ার ফলে  বর্ষা মৌসুমেই নদী গর্ভে চলে যাবে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি প্রখ্যাত  সাংবাদিক আলতাফ মাহামুদের সমাধিস্থল।
স্থানীয় জনসাধারণেরা জানান, প্রখ্যাত সাংবাদিক   আলতাফ মাহমুদের বাড়ীর ঘর সংলগ্ন মসজিদের পাশেই রয়েছে পারিবারিক গোরস্থান। উক্ত বিষয়ে মসজিদের  ঈমাম মো. কুদ্দুস খান, এলাকাবাসী মো. আলম খান, মো. ছালাম খান, মো. হেলাল খান ও ইউনুচ খান এরা জানান, প্রখ্যাত সাংবাদিক আলতাফ মাহমুদের বাড়ী ও সমাধিস্থলের অতি সন্নিকটে নদী ভাঙ্গনের কবলে রয়েছে যে কোন মুহুর্তে ধসে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
উল্লেখ্য রামনাবাদ নদীর  ভাঙ্গনের মুখে রয়েছে ডাকুয়া ইউনিয়ন পরিষদ,আটখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়,আটখালী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আটখালী কমিউনিটি ক্লিনিক, গলাচিপা কলাগাছিয়া সংযোগ সড়কের একাংশ, গলাচিপা-চরচন্দ্রাইল সংযোগ সড়কের একাংশ। এ ছাড়া তেঁতুলতলা বাজার, দুইশত বছরের পুরনো জমিদার বাড়ি, ৫টি মসজিদ, ২টি মন্দির, অসংখ্য বাড়ি ঘর ও ফসলী জমি। নদী ভাঙ্গন রোধ কিংবা নদী শাসনের কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করে পানি উন্নয়ন বোর্ড দুই বার বন্যা নিয়ন্ত্রন ভেড়ি বাধ নির্মান করেছে। কয়েক বছরে গলাচিপা নদীর ভাঙ্গনে  বাস্তহারা হয়েছে শতাধিক পরিবার। ইতিমধ্যে এক কিলোমিটার ভেড়িবাঁধ বিধস্ত হয়েছে। জোয়ারের লোনা পানি প্রবেশ করে ফসলের ক্ষতি হচ্ছে।
এলাকার জনসাধারণ ও কৃষকগোষ্ঠী  আমির হোসেন মল্লিক, হারুন হাওলাদার সহ জানায়, “আমরা আর ভেড়ি বাঁধ চাইনা। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছে একটাই দাবি নদী শাসনের মাধ্যমে  ভাঙ্গন রোধ করে আমাদের সহায় সম্পদ রক্ষা করার ব্যবস্থা করুন।
স্থানীয়  ইউপি চেয়ারম্যান বদরুল ইসলাম বাদল খান জানান, নদী শাসন ও ড্রেজিং করে নদীর গতি পথ পরিবর্তনের উদ্যোগ গ্রহণ করা না হলে ডাকুয়া ইউনিয়নের শত শত কোটি টাকার সরকারী ও কয়েক লক্ষ হেক্টর  কৃষিআবাদী জমি সহ  বিশেষ বাংলাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মরহুম আলতাফ মাহামুদের সমাধিস্থল খুব শীঘ্রই নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে।

মন্তব্য

মন্তব্য