৯ দফা দাবি : ৬ ঘন্টা সড়ক অবরোধ ডেমারায় রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকল শ্রমিকদের ধর্মঘট

 

মুন্সি আল- ইমরান
নগরীর ডেমরায় মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন ও বকেয়া মজুরি পরিশোধসহ ৯ দফা দাবিতে ফের ধর্মঘট পালন করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত লতিফ বাওয়ানী ও করিম জুট মিলের শ্রমিকরা। মঙ্গলবার ভোর ৬ টা থেকে শুরু হওয়া উভয় মিলের উৎপাদন বন্ধ রেখে ৭২ ঘন্টার ওই ধর্মঘট কর্মসূচি শুরু হয়। পরে আবার আজ বুধবার সকাল ৬ টা থেকে বেলা ১২ পর্যন্ত মোট ৬ ঘন্ট র্ধমঘট চলার পর আবার আগামীকাল সকাল ৬টা থেকে এ র্ধমঘট করার জন্য সকল ভুক্তভোগী শ্রমিকদের আসার আহবান জানান হয়। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ডেমরা-যাত্রাবাড়ী ও ডেমরা-রামপুরা সড়ক অবরোধ করে আগুন জালিয়ে বিক্ষোভ করেছেন শ্রমিকরা। রাষ্ট্রায়ত্ত দুই পাটকলের শ্রমিকরা যৌথভাবে এ ধর্মঘট ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচী পালন করেন। এ সময় সড়কগুলোতে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে নাকাল হয়ে পড়েন ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ডেমরা-যাত্রাবাড়ী ও ডেমরা-রামপুরা সড়কে চলাচলকারী লাখো যাত্রী সাধারণ ও যানবাহন চালকেরা। এছাড়াও এইচএসসি পরীক্ষার্থীরাসহ শিক্ষার্থী ও রোগীরা দীর্ঘ যানজটে আটকা পড়েন। তবে শিক্ষার্থী ও এ্যাম্বুলেন্সের গাড়ী ছেড়ে দিয়েছেন শ্রমিকেরা। এদিকে যানযটে আটকা পড়া শিক্ষার্থীদের হেঁটে অনেক দূর পর্যন্ত আসতে হয়েছে। এ ঘটনায় ডেমরা ও আশপাশের এলাকার কর্মজীবি ও অফিসগামী লাখো মানুষেষের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। শ্রমিকরা আন্দোলন করলে ও কোন অপ্রতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

ঘটনাস্থলে শ্রমিকরা জানান, বকেয়া বেতন ও মজুরি কমিশনসহ ৯ দফা দাবিতে ইতিপূর্বে আমরা কয়েকটি কর্মসূচী পালন করলেও সরকার বিষয়টি আমলে নেয়নি। সরকার ঘোষিত জাতীয় মজুরি ও উৎপাদনশীলতা কমিশন-২০১৫ সুপারিশ বাস্তবায়ন, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্র্যাচুইটি ও মৃত শ্রমিকের বীমার বকেয়া প্রদান, টার্মিনেশন, বরখাস্ত শ্রমিকদের কাজে পুনর্বহাল, শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়োগ ও স্থায়ী করা, পাট মৌসুমে পাটক্রয়ের অর্থ বরাদ্দ, উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষ্যে মিলগুলোকে পর্যায়ক্রমে বিএমআরই করাসহ ৯ দফা বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু আমাদের দাবিগুলো এখনও বাস্তবায়ন না হওয়ায় আমরা আন্দোলনে নেমেছি।

মন্তব্য

মন্তব্য