তিতাসে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আলোচনায় শিলা

 

মোঃ জুয়েল রানাঃ তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ
আগামী ৩১ মার্চ আসন্ন কুমিল্লা তিতাস উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাতেই জল্পনা কল্পনার অবসানের শেষ নেই প্রার্থী ও ভোটারদের মাঝে। যত দিন যাচ্ছে ততই প্রার্থীরা ব্যস্ত হয়ে পড়ছে ভোটারদের মন জয় করে তাদের সমর্থন পেতে। আর সুযোগের অপেক্ষায় ভোটারেরাও তাদের পছন্দের প্রার্থী, যাদের দ্বারা সমাজ ব্যবস্থার উন্নত সাধিত হবে। এভাবেই হিসাব নিকাশ চলছে উপজেলার প্রত্যেক প্রার্থী ও ভোটারদের মাঝে। এই ক্ষেত্রে অনেকটা এগিয়ে আছেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোসাম্মৎ সামিয়া সুলতানা শিলা। জানা যায়, তিনি এবার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই পদে আরো ৫ জন তার সাথে ভোট যুদ্ধে রয়েছেন। তবে জনপ্রিয়তায় অন্যদের চেয়ে যোজন যোজন এগিয়ে তিনি।শিলা বর্তমানে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি তিতাস উপজেলার সাবেক  ভিটিকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের সুনামধন্য আক্তার চেয়ারম্যান এর ভাতিজি ও একই ইউনিয়নের সাবেক প্রভাবশালী চেয়ারম্যান নেছার আহমেদ এর আপন ছোট ভাই ঢাকার বিশিষ্ট সফল ব্যবসায়ী মোঃ মহিউদ্দিন সরকারে স্ত্রী।শিলার শিক্ষাগত যোগ্যতাও রয়েছে অন্যান্য প্রার্থীর চেয়ে বেশী। তিনি ঢাকায় থেকে বিএসসি কমপ্লিট করেন। তার বাবা-মা সহ স্বামীর পরিবারে রয়েছে অসংখ্য সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী। এছাড়াও শিলা গত নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত ভাইস চেয়ারম্যান হয়েছেন। এবার বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করলেও শিলা নির্বাচনে আসায় সকল ভোটাররা তাকে বিএনপি’র একক প্রার্থী হিসেবে বিবেচনা করছেন। এ নিয়ে এলাকার প্রতিটি ইউনিয়নের চা স্টল থেকে শুরু করে পাড়া  মহল্লায় তাহার নাম আলোচনায় রয়েছেন।শিলা বলেন, আমি এখন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছি। আমি নির্বাচন করার বিষয়ে মত ছিলাম না তিতাসে সর্বস্তরের সাধারন খেটে খাওয়া মানুষ নির্বাচন করার জন্য অনুরোধ  করেছিল আমি তাদের কথা চিন্তা করে প্রার্থী হয়েছি। এলাকার মানুষের উপকার করতে হলে জনগনের প্রতিনিধি না হয়ে করা যায় না, তা আমি নিজের থেকেই বুঝেছি। তিতাস উপজেলাী মানুষ অনেক অবহেলিত তারা নাগরিক সুবিধা থেকে অনেকটা বঞ্ছিত। নারীরাও রয়েছে পিছিয়ে। আশা করি আগামী ৩১ মার্চ আমাকে কলস মার্কা একটি করে ভোট দিয়ে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  হিসেবে বিজয়ী করবেন এবং বিজয়ী হতে পারলে উপজেলার সকল স্তরের মানুষের সাথে সমন্বয় করে এলাকার উন্নয়নে কাজ করবো ইনশাল্লাহ।

মন্তব্য

মন্তব্য