কালীগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল সীমা

 

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি

কালীগঞ্জে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো সীমা আক্তার (১৩)। উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের বাঙ্গালগাঁও গ্রামে গতকাল শুক্রবার  সীমা আক্তারের সাথে একই গ্রামের শাহজাহানের বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন সংবাদ পায় উপজেলার নতুন ইউএনও শিবলী সাদিক। তাৎক্ষনিক ইউএনও কালীগঞ্জ থানার  অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবু বকর মিয়াকে বিষয়টি অবগত করেন এবং বাল্যবিয়ে বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। পরে ওসির নির্দেশ কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহমান তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে কনের বাড়িতে গিয়ে স্থানীয় মেম্বার ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয়। প্রাপ্তবয়স্কর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেওয়ার জন্য সীমার বাবা-মার নিকট থেকে

মুচলেকা নেয়া হয়।

জানা যায়, উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের বাঙ্গালগাঁও গ্রামের মো. আনোয়ার বেপারীর মেয়ে সীমা আক্তারের (১৩) সাথে একই এলাকার মো. রফিক মোল্লার ছেলে মো. শাহজাহান হোসেনের (১৫) বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা চলছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা  (ইউএনও) শিবলী সাদিক পুলিশ প্রশাসনকে বাল্যবিয়ে বন্ধ করতে নির্দেশ দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কনের বাবা-মার মুচলেকা নিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয়।

কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহমান বাল্যবিয়ে বন্ধের ঘটনাটি নিশ্চিত করে বলেন, স্থানীয় মেম্বার, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য