কুমিল্লা দাউদকান্দি বিষাক্ত কীটনাশকে অবুঝ শিশু ও গর্ভধারিনী মার মৃত্যু

মোঃ গোলাম মোস্তফা, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি //
ধার দেনা থেকে মুক্তি পেতে দুনিয়া থেকে বিদায় নিলেন, একটি অবুঝ শিশু ও তার মা।
অদ‍্য_২০/১১/২০১৮,ইং তারিখ, মঙ্গলবার সকাল ৭ ঘটিকায় দাউদকান্দি থানাধীন,সুন্দলপুর মডেল ইউনিয়ন পরিষদ এর পাশের গ্রাম ভগলপুর , জনাব ইসমাইল সাহেবের বাড়িতে ভাড়া বাসায় অবস্থানরত, মোঃ আবু বক্কর এর স্ত্রী মোসা, খালেদা আক্তার(১৯)ও পুত্র মোঃ আবু সাঈদ (০১) সাং বাই ছারা ,থানা কচুয়া, জেলা  চাঁদপুর। স্থানীয় লোকজন এবং নিকট আত্মীয়র কাছ থেকে জানা যায় প্রতিদিনের মত ১৯/ ১১/১৮ইং  তারিখ যথারীতি সবাই ঘুমিয়ে পড়েন এবং পরের দিন ২০/১১/২০১৮ তারিখ আনুমানিক সকাল সাত ঘটিকায় ঘটনাস্থলে রুমটিতে দরজা জানালা বন্ধ এবং ভিতর থেকে আটকানো ছিল পাশে অবস্থানরত ভাড়াটিয়াগণ ডাকলে ভিতর থেকে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে মোছাম্মৎ ফিরোজা বেগমকে মোবাইল ফোন এর মাধ্যমে খবর দেওয়া হয়, খবর পেয়ে খুব দ্রুত মেয়ে মেয়ে জামাই ভাড়া কি তো বাসায় এসে পৌঁছান এবং দীর্ঘ ডাকাডাকির পরও দরজা না খোলায় দাউদকান্দি মডেল থানায় খবর দেওয়া হয়।খবর পেয়ে দাউদকান্দি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব আলমগীর হোসেন কর্তব্যরত অফিসার , সাব ইন্সপেক্টর আমিনুর রহমানকে, ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় লোকজন এবং মা ফিরোজা বেগম(৫০) এর সহযোগিতায় দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে, দেখতে পান খালেদা আক্তার ও শিশু সন্তান পড়ে আছে, স্থানীয় লোকদের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান অধিক ধার দেনার জন্য প্রতিদিন সমস্যা লেগেই থাকত অনেক মানুষ অনেক কথা বলতো, অপমান অপদস্থের কারণে আমার মেয়েও নাতী আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাস্থলে কর্তব্যরত পুলিশ জনাব আমিনুর রহমান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান এটি একটি অপমৃত্যু। দেনার দায় সইতে না পেরে শিশু ছেলে এবং নিজে বিষাক্ত কীটনাশক পান করার কারণে উভয়েরই মৃত্যু ঘটে।

মন্তব্য

মন্তব্য