পঞ্চগড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-১০, আহত-১৯

 

মুহম্মদ তরিকুল ইসলাম,পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি // পঞ্চগড় সদর উপজেলাধীন ৬নং সাতমেড়া ইউপির শিতলী হাসনা গ্রামাধীন দশমাইল নামক স্থানে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। ২৬ অক্টোবর/১৮ শুক্রবার রাত ৭:৩০ ঘটিকার সময় পঞ্চগড় থেকে তেঁতুলিয়াগামী একটি বাসের সঙ্গে তেঁতুলিয়া থেকে পঞ্চগড় গামী দ্রুত গতি সম্পন্ন মেক্স কোম্পানীর বোঝায় বৈদ্যুতিক খুঁটি বহরকারী একটি ট্রাকের সংঘর্ষে উক্ত দুর্ঘটনাটি ঘটে। যা বাসটির রেজি: নং-মৌলভীবাজার-ব-০০৪৪।এতে নিহত হয়েছেন ১০জন, আহত হয়েছেন ১৯জন। তবে ৭ জনের অবস্থা আশংকাজনক।নিহতরা হলেন- লাভলী (২৯), লাভলীর ছেলে ইয়ািসন (৭), রেজাউল (২২), ফিরদ (২৮), অনিত্য (২০), রােসল (২৭), লায়লা (২৫), লুফর(২০), মোজাম্মেল (৩৮) ও মিনর(১০)। সনাক্তকারী নিহত হলেন, ৬নং সাতমেড়া ইউপির জোত হাসনা গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী লাভলী আক্তার(২৮) ও তার শিশু ইয়াসীন(৫)। ইয়াসীন দশমাইল নূরানী ও হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিশু জামাতের ছাত্র। অপরদিকে অন্যান্য নিহতদের সঠিক পরিচয় সম্ভব হয়নি।দূর্ঘটিত বাসটির যাত্রী তেঁতুলিয়া উপজেলার ভুরিমুটকী গ্রামের মো: সাইদুল আলম জানান, বাসটিতে আমি ও আমার স্ত্রীসহ পঞ্চগড় থেকে আসার এক পর্যায়ে আমরা গাড়ীর ডান সাইট থেকে বাম সাইটে উঠে বসলে দশমাইলে আসামাত্রই গাড়ীর ডান সাইটে অন্যগাড়ীর ধাক্কায় এক বিকট শব্দ হলে নিচে নামেই দেখি ৪ থেকে ৫ টি গলা কাটা লাশ সিটের মধ্যে ল্যাপ্টে আছে।প্রত্যক্ষদর্শী মো: জবেদুল ইসলাম ও দশমাইল বাজারের স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ জানান, তেঁতুলিয়া থেকে ম্যাক্স কোম্পানীর একটি বৈদ্যুতিক খুঁটি বোঝায় গাড়ী পঞ্চগড়ে যাচ্ছিল আর পঞ্চগড় থেকে যাত্রীভর্তি একটি মিনিবাস তেঁতুলিয়ায় দিকে আসতেছিল হঠাৎ দুই গাড়ীর সংঘর্ষ হলে উক্ত দূর্ঘটনাটি ঘটে। তবে দূর্ঘটনার স্থানে অন্য একটি বাস থেমে থাকতে দেখেন। ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার নিরঞ্জন সরকার জানান, পঞ্চগড় থেকে ভাই-বোন এন্টারপ্রাইজের যাত্রীবাহী একটি বাস তেঁতুলিয়া যাচ্ছিল। পথে ১০ মাইল বাজারের কাছে বিপরীত দিক থেকে আসা বৈদ্যুতিক খুঁটিবাহী একটি ট্রাকের সঙ্গে বাসটির সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজনের মৃত্যু হয়। পরে শিশুসহ আরো তিনজনের মৃত্যু হয়।পঞ্চগড় সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মনোয়ারুল ইসলাম জানান, আহতদের হাসপাতালে নিয়ে আসার পরে দুই শিশু ও এক নারীর মৃত্যু হয়। তবে নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। আহতদের মধ্যে সাত জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক রয়েছে। এরই মধ্যে রংপুর মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে আশঙ্কাজনক আহতদের পাঠিয়ে দিয়েছি। এই মর্মান্তিক দূর্ঘটনা শুনে ছুটে আসেন, নবাগত জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ গোলাম আজম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ এহতেশাম রেজা।ঘটনাটি পরিদর্শনে আসেন, রংপুর হাইওেয় (এসিপ) মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, সহ-কারী পুিলশ সুপার (রংপুর সার্কেল), ধীরেন ও তেঁতুলিয়া হাইওেয় অফিসার ইনচার্জ মো: রফিক বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে অপরাধ কারীদের বিরুদ্ধে মামলা দািখল করা হবে। এরই মধ্যে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। অপরদিকে নিহত পরিবারের মধ্যে ২০হাজার করে টাকা অনুদান করা হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য