বুড়িচংয়ে মায়ের চোখের সামনেই গভীর গর্তের পানিতে তলিয়ে গেলো মেয়ে


হালিম সৈকত,কুমিল্লা //

বুড়িচং এর খোদাইধূলি গ্রামের উওর পূর্ব পাড়া বড় ব্রীজ এর পাশের ড্রেজারে কাটা জমীর ৭০ফিট নিচু গর্ত থেকে ৩য় শ্রেনীর ছাত্রী তাহমিনা( ৮) এর লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস এর ডুবুরি দল।

নিহত তাহমিনা খোদাইধুলি গ্রামের রবিউল ইসলামের মেয়ে। রবিবার বিকেল ৫টায় বাড়ির অদুরের জমিতে মা ও মেয়ে হাঁস আনতে গর্তের কাছে গেলে, তাহমিনা পা ফসকে গর্তে পরে যায়। মেয়েকে বাঁচাতে মা ও পানিতে ঝাপ দেয়। সাতাঁর না জান তাহমিনা মায়ের চোখের সামনেই তলিয়ে যায় পানিতে। মায়ের চিৎকারে স্থানীয়রা মাকে জীবিত উদ্ধার করলেও মেয়েটি পানির গভীরে তলিয়ে যাওয়ায় তাকে উদ্ধার করতে না পেরে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। বিকেল সারে ৫টা থেকে রাত ১০পর্যন্ত ৪ঘন্টার ও অধিক সময়ের চেষ্টায় ডুবুরি দল তাহমিনার মরদেহ গর্তের প্রায় ৭০ ফিট নিচে থেকে উদ্ধার করে আনে। নিহত তাহমিনার লাশ উদ্ধারের পর পরিবার ও স্বজনদের কান্নায় আশেপাশের পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে।

এ রিপোর্ট লিখার সময় নিহতের মরদেহ বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেয়া হচ্ছিলো। ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছে বুড়িচং থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোজ কুমার দে এবং ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা।

মন্তব্য

মন্তব্য