শ্রীপুরে গাড়ি ছিনতাইকালে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

সাইফুল আলম সুমন, নিজস্ব প্রতিবেদক//
গাজীপুরের শ্রীপুরের মাওনা গ্রামে ছিনতাইকৃত প্রাইভেটকারসহ ছিনতাইকারী সুমন মিয়াকে (২৭) আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। আটক সুমন ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার কুজরা গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে তিন টায় উপজেলার মাওনা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মুক্তাদীর হোসেনের বাড়ীর গ্যারেজ থেকে প্রাইভেটকার ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে।

মুক্তিযোদ্ধা মুক্তাদিরের ছেলে মাসুম (২৫) জানান, তার প্রাইভেটকার চালক রিপন মিয়া (২৪) রাত তিনটায় গ্যারেজে গাড়ী রেখে প্রাকৃতিক কাজ শেষে ঘরের বাহিরে যায়। আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ৪ ছিনতাইকারী প্রাইভেটকারের দরজা খোলার চেষ্টা করে। এসময় চালক রিপন এসে তাদেরকে জিজ্ঞাসা করে গাড়ীতে কি করছেন। পরে ছিনতাইকারীরা তাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। তার চিৎকার শুনে প্রাইভেটকার মালিক মাসুম ঘর থেকে বাহিরে আসলে ছিনতাইকারীদের গাড়ী নিয়ে পালাতে গেলে আহত চালককে নিয়ে গাড়ীসহ ছিনতাইকারীদের পিছু নেয় মাসুম। পরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মাওনা চৌরাস্তা পল্লী বিদ্যুৎ মোড়ে ছিনতাইকারীদের প্রাইভেটকার আটক করলে ফাঁকা গুলি করে তিন ছিনতাইকারী চলে যায়। অপর এক ছিনতাইকারী দৌড় দিলে জনতা সুমন মিয়া নামে এক ছিনতাইকারীকে আটক করে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে শ্রীপুর থানার এস আই আজাহার হোসেন প্রাইভেটকারসহ ছিনতাইকারীকে থানায় নিয়ে যায়।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম মোল্লা জানান, উদ্ধারকৃত প্রাইভেটকার ঢাকার ধামরাই উপজেলার উত্তরপাতা গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে ফিরোজ কবিরের। প্রায় আড়াই মাস আগে ৩/৪জন যাত্রী সেজে শ্রীপুরের তেলিহাটি এলাকায় যাওয়ার জন্য তার প্রাইভেটকার ভাড়া নেয়। পরে ওই এলাকার শিশু পল্লী রোডে চালক হৃদয়কে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে প্রাইভেটকার (নং ঢাকা মেট্রো ৩১-০৭০৬) থেকে ফেলে দিয়ে গাড়ী নিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় প্রাইভেটকার মালিক অজ্ঞাত ছিনতাইকারীদের নামে শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করে। পূর্বের ছিনতাইকৃত গাড়িটি নিয়েই ছিনতাই করতে এসেছিল তারা জানিয়েছেন থানা পুলিশ।

মন্তব্য

মন্তব্য