শ্রীপুরে কারখানা শ্রমিক ও শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ

সাইফুল আলম সুমন,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
গাজীপুরের শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে শ্রমিকেরা। একই সাথে শিক্ষার্থীরাও নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাস্তায় নেমেছে। ফলে সকাল সাতটা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্তÍ সড়কটির যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ থাকে। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মাওনা চৌরাস্তা সহ বিভিন্ন এলাকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের দাবীতে মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে গত কয়েকদিনের মত চরম দুর্ভোগে পড়ে পথচারী ও যাত্রীরা। তবে যে সকল যানবাহনের কাগজপত্র সঠিক ছিল ছাত্ররা তাদের ছেড়ে দিলেও শ্রমিকদের সড়ক অবরোধের কারণে প্রায় পাঁচ কিলোমিটারে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। অবরোধমুক্ত করতে হাইওয়ে ও থানা পুলিশ শিক্ষার্থীদের ও শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরাতে সক্ষম হয়। ফলে দুপুর ২টার পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এ সময় সড়কে মোতায়েন ছিল বিপুল সংখ্যক পুলিশ। শিক্ষার্থীরা বি ধিহঃ লঁংঃরপব স্লোগানে মুখরিত রেখেছে সড়ক। শ্রমিকরাও মিছিলে মিছিলে নিরাপদ সড়ক চাই দাবি তুলছে। আন্দোলনকারী শ্রমিক এবং শিক্ষার্থীদের দাবিকে সমর্থন জানাচ্ছে সাধারণ মানুষ। তারাও রাস্তার দুই পাশে আন্দোলনকারীদের সাথে একই সুরে নিরাপদ সড়কের দাবিতে হাত নেড়ে সমর্থন জানাচ্ছেন। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ঢাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় তাদের দুই সহপাঠী নিহত হওয়ায় সারা বাংলাদেশে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে তারাও নিরাপদ সড়ক চেয়ে ও বাড়ি ফেরার নিশ্চয়তা চেয়ে আন্দোলনে নেমেছে।

এ দিকে গত শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দিকে শ্রীপুর উপজেলার ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ২নং সিএন্ডবির এসকিউ কারখানা সংলগ্ন এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় সফিকুল ইসলাম নামে এক শ্রমিক মারা যায়। এ ঘটনায় হাজার হাজার শ্রমিক সকাল থেকে কারখানার সামনে সড়ক অবরোধ করে রাখে। এদিকে নোমান উইভিং নামক একটি কারখানার শ্রমিক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়ায়। এ ঘটনাটি আন্দোলনকে আরো বেশি প্রভাবিত করেছে। এ ছাড়া আরও বেশ কয়েকটি কারখানার শ্রমিকরা মাওনার আশপাশে সড়ক অবরোধ করে রেখেছে।

মাওনা হাইওয়ে পুলিশের অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হোসেন জানান, আমরা সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করতে চেষ্টা করছি। ছাত্র-ছাত্রী ও বিভিন্ন কারখানার শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে যাওয়ায় যান চলাচল স্বাভাবিক করতে কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে। সড়কে হাইওয়ে পুলিশ ও শ্রীপুর থানা পুলিশ অবস্থান করছে।

শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুল হাসান জানান, আমরা মহাসড়ক থেকে শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে সরানোর চেষ্টা করছি। তবে শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক অছাত্ররাও যোগ দিয়ে ঘটনা ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টা করছে। তবে পুলিশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

গাজীপুর হাইওয়ে পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার সালেহ আহমেদ জানান, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীদের অবরোধ, মানববন্ধনে মহাসড়কে যানচলাচল নেই, কার্যত মহাসড়কটি অচল। এতে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে যানবাহনের অভাবে পথচারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

মন্তব্য

মন্তব্য