তালায় সহকারী শিক্ষক নিজের অপকর্ম ঢাকতে অফিস সহকারীকে পিটিয়ে জখম

মোঃ মোকলেসুর রহমান,তালা প্রতিনিধি
সাতক্ষীরার তালা উপজেলার খলিলনগর ইউনিয়ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের এক সহকারী শিক্ষক নিজের অপকর্ম ঢাকতে অফিস সহকারী জিয়াউর রহমান (৩৮)কে পিটিয়ে গুরুত্বর জখম করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয়ে অফিস রুমে এঘটনা ঘটে। এঘটনায় উপস্থিত কয়েকজন শিক্ষক সহকারী শিক্ষক সালাউদ্দীন মালীকে দোষারোপ করেছে। অফিস সহকারী জিয়াউর রহমান তালা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
তালা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জিয়াউর রহমান জানান, বিগত ২০১০ সালে তিনি অফিস সহকারী হিসেবে যোগদানের পর থেকে সহকারী শিক্ষক সালাউদ্দীন তাকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করে আসছে। এ বছর অর্ধবার্ষিক পরীক্ষার ৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পরীক্ষার ফিস উত্তোলন দায়িত্ব ছিল সহকারী শিক্ষকের। পরীক্ষার ফি’র টাকা অফিসে জমা না দিয়ে সহকারী শিক্ষক সালাউদ্দীন মালী আত্মসাৎ করার চেষ্টা করছিল। বিষয়টি অফিস সহকারী স্কুল কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে। পরে বিষয়টি মঙ্গলবার দুপুরে কয়েকজন শিক্ষক উপস্থিত থেকে হিসাব করার সময় এক পর্যায়ে সালাউদ্দীন এর উপর আর্থিক দায়ভার চেপে পড়লে পূর্ব শত্রুর জের ধরে অফিস সহকারী জিয়াউর রহমান এর উপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়। এতে অফিস সহকারী জিয়াউর রহমান গুরুতর জখম হয়। পরে শিক্ষকরা তাকে উদ্ধার করে তালা হাসপাতালে ভর্তি করে। এরপূর্বে সহকারী শিক্ষক সালাউদ্দীন অত্র স্কুলের প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিত, প্রধান শিক্ষকের পেটে ছুরি মারার চেষ্ঠা, উপজেলা নলতা গ্রামের শামছুর সরদারের ছেলে জামাল সরদারের পাটের গুদামে আগুন লাগানো, নারী কেলেঙ্কারীর দায়ে বিষপানে আত্বহত্যার চেষ্ঠাসহ বহু অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
এঘটনায় সহকারী শিক্ষক সালাউদ্দীন মালী জানান, আর্থিক লেনদেনের বিষয় নিয়ে কথাবলার সময় আমাকে খারাব ভাষায় কথা বললে আমি তাকে তালপাতা পাখার ডাটা দিয়ে মেরেছি। সে আমার জামা ছিড়ে দিয়েছে।
উক্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষক শেখর চন্দ্র দেবনাথের কাছে এবিষয়ে জানাতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি তবে আমি স্কুলের কাজে বাইরে ছিলাম।

মন্তব্য

মন্তব্য