শ্রীপুরে জরাজীর্ণ ভবনে পাঠদান, মৃত্যুঝুঁকিতে শিক্ষার্থীরা !

সাইফুল আলম সুমন,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
গাজীপুরের শ্রীপুরে জরাজীর্ণ ভবনের ছাদের নিচে জীবনের মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে চলছে পাঠদান। জীবনের জন্য শিক্ষা না শিক্ষার জন্য জীবন। জ্ঞানের আলোনিতে বিদ্যালয়ে এসে যদি জীবন প্রদীপই নিভে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাহলে সে জ্ঞানের আলো কোন কাজে আসবে? এর বাস্তব উদাহরণ উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের বারতোপা গ্রামের ৯২ নং বারতোপা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,উপজেলার ৯২ নং বারতোপা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় জরাজীর্ণ ভবনের ছাদের নিচে চলছে মৃত্যুঝুকি নিয়ে প্রায় তিনশতাধিক শিক্ষার্থীর পাঠদান। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বেঞ্চ বা মাথার ওপর খসে পড়ে পুরাতন ভবনের পলে¯Íরা। বর্ষা এলেই ছাঁদ চুয়ে পড়ে পানি। যে কোন সময় ছাঁদ ধসে ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। দীর্ঘদিন ধরে প্রত্যান্ত এলাকার এ বিদ্যালয়টি পূর্ণ নির্মাণের দাবি উঠলেও কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে উদাসিন বলে অভিযোগ সংশিøষ্টদের।এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিÿা অফিসার ও উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত ভাবে জানানো হলেও এর কোন প্রতিকার হয়নি।

১৯৩৫ সালের শ্রীপুর উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১৩কিলোমিটার দূরে মাওনা ইউনিয়নের বারতোপা গ্রামে বিদ্যালয়টি স্থাপিত। স্থানীয় শিক্ষানুরাগী হাজী আবেদ আলী মোলøা, হাজী আব্বাছ আলী মোলøা, মো.রিয়াজউদ্দিন মোলøা, মো.গিয়াস উদ্দিন মোলøার দান করা এক একর পাঁচ শতাংশ জমির নিয়ে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৯৫-৯৬ অর্থ বছরে আইডিবি’র মাধ্যমে তিনটি কক্ষ নিয়ে বিদ্যালয়ের পাকা ভবনটি নির্মিত হয়। জরাজীর্ণ ভবনটির পাশে আরো তিনটি আধা-পাকা ভাঙাচোরা টিনসেড শ্রেণীকক্ষ কোনমত সংস্কার করে পাঠ দানের কাজ চলছে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আমির হোসেন মোলøা বলেন,ভাঙা চোরা ভবন,আধা-পাকা টিনসেড শ্রেণিকক্ষ সংস্কার ও নতুন ভবন নির্মাণসহ নানা সমস্যা সমাধানে সংশিøষ্ট উপজেলা চেয়ারম্যান এবং কর্তৃপক্ষের দ্রæত হ¯Íক্ষেপ কামনা করেন।

অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিলøুর রহমান জানান, এ বিদ্যালয়ের পড়ালেখার মান ও ভালো। তবে বিদ্যালয়ে তিনটি শ্রেণীকÿ জরাজীর্ন, ঝুকি নিয়ে শিক্ষর্থীদের ওই ছাদের নিচে পড়া লেখার কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। সমস্যা সমাধানে শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ কামনা করছি। শ্রীপুর উপজেলা ভারপ্রাপ্তশিক্ষা অফিসার মো.সিদ্দিকুর রহমান খাঁন বলেন,বিষয়টি আমি জানি না। তবে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি যদি লিখিত ভাবে বিষয়টি আমাকে জানান তাহলে খুব দ্রæত এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য