মাদারীপুরের মেধাবী কাকলী শিবচরের গর্ব

পাপিয়া বাড়ৈ (জয়), প্রতিবেদক: মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাকলী আক্তারকে শিবচরের গর্ব হিসেবে আখ্যায়িত করলেন। গত শনিবার বিকেলে ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী কলেজের নবনির্মিত ৪তলা বিশিষ্ট আইসিটি ভবন উদ্বোধন করেন আওয়ামীলীগ সংসদীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক ও অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত কমিটির সভাপতি নূর-ই আলম চৌধুরী এমপি। অনুষ্ঠানের শুরুতে তিনি কাকলী আক্তারকে শিবচরের গর্ব হিসেবে সবার মাঝে পরিচয় করিয়ে দেন। অতি দরিদ্র পরিবারের মেয়ে কাকলী আক্তার এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ন হয়।
শনিবার বিকেলে উপজেলার ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী কলেজের নবনির্মিত ৪তলা বিশিষ্ট আইসিটি ভবন উদ্বোধন ও নবীনবরন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন আওয়ামীলীগ সংসদীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক ও অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত কমিটির সভাপতি নূর-ই আলম চৌধুরী এমপি । এসময় জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সভাপতি মুনির চৌধুরী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিয়াজ উদ্দিন খান, পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন খান, সাধারন সম্পাদক ডা. মোঃ সেলিম ও অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।
নূর-ই আলম চৌধুরী এমপি বলেন, পাঁচটি কলেজের মধ্যে ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী কলেজের ৮৯ ভাগ কৃতকার্য হয়েছে। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে অদম্য মেধাবী কাকলী আক্তার। দরিদ্র এ মেধাবী মেয়েটি আমাদের গর্ব ও আমারদের অনেক সুনাম কুড়িয়েছে। তাই এ মেধাবী মেয়েটির পাশে থাকার জন্য কলেজ থেকে বিনামূল্যে ভর্তি, লেখাপড়া ও বৃত্তি দেয়া হয়েছে। দরিদ্রতা থাকার কারনে পরিবারটির ঘর সংস্কার, সৌর বিদ্যুৎ ও নগদ অর্থ দেয়া হয়েছে এবং ওর পড়াশুনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য আমরা ওর পাশে থাকবো।
উল্লেখ্য, চলতি বছরে উপজেলার এইচএসসি ফলাফলে ৫টি কলেজের মধ্যে ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী কলেজ ৮৮.৫৯ ভাগ উত্তীর্ন হয়ে শীর্ষ স্থান দখল করে আছে। এ কলেজগুলোর মধ্যে একমাত্র জিপিএ-৫ অর্জনকারী দরিদ্র পরিবারের মেধাবী ছাত্রী কাকলী আক্তার। পদ্মা নদী ভাঙ্গনে নিঃস্ব পরিবারটি উপজেলার পাচ্চর গ্রামে জরাজীর্ন একটি টিনসেট ঘরে বসবাস করে। ৫ ভাই বোনের সংসারে বাবা হারুন মাদবর একজন দিনমজুর ও মা তাসলীমা বেগম সংসারী । খুব কষ্টে চলছে তাদের সংসার। বাবা অন্যের জমিতে কাজ করে যা রোজগার করে তাই দিয়েই সংসার চলে। ছোট থেকেই কাকলী লেখাপড়ায় খুবই মনোযোগী ছিল। এসএসসি তে কাকলী অনেক সংগ্রাম করে জিপিএ-৫ অর্জন করে । পরে ভর্তি ফি ছাড়াই ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী কলেজে পড়ার সুযোগ পায়। বেতনসহ যাবতীয় খরচ কলেজ বিনামূল্যে করে তার পড়াশুনার সুযোগ করে দেয়। স্থানীয় সংসদ সদস্য নূর-ই আলম চেীধুরীসহ আরো অনেকেই অদম্য এ মেধাবী কাকলীর পাশে এসে দাড়িয়েছেন।

মন্তব্য

মন্তব্য