হোমনায় জলাতংক রোগে গৃহিণীর মৃত্যুর পর পরিবারে আতঙ্ক

কুমিল্লা প্রতিনিধি: কুমিল্লার হোমনায় জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত হয়ে ঝড়না বেগম (৪৫) নামের এক গৃহিণীর মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার জয়নগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সে ওই গ্রামের আছমত আলীর মেয়ে ও উপজেলা সদরের আফুরপাড়ার হালিম মিয়ার স্ত্রী।
হঠাৎ এমন খবর শুনে আশে-পাশে গ্রাম থেকে আসা লোকজনের ভির সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে পরিবার এবং একই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় আতঙ্কে রয়েছে পরিবারের অন্য সদস্যরাও।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের জয়নগর গ্রামের আছমত আলীর মেয়ে ঝড়না বেগম (৪৫) গত ২মাস পূর্বে বাড়ির পাশে কাজ করার সময় ঝোপের আড়াল থেকে বেজি তার হাতে কামড় দেয়। তখন তার শোরচিৎকারে লোকজন এসে বেজিটিকে মেরে ফেলে এবং তাকে ডাক্তারের নিকট নিয়ে গেলে, ডাক্তার তাকে ৩টি ভ্যাকসিন নিতে বলে। কিন্ত ঝড়না বেগম ১টি ভ্যাকসিন নেয়ার পর আর কোন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন নি। এরপর গত ১৫ জুলাই রোববার সে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরিক্ষার পর ডাক্তার নিশ্চিত হন, তার শরীরে জলাতংক রোগের জীবানু রয়েছে। পরে মেডিক্যাল টিম গঠন করে ৩ দিনের সময় দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন এবং মঙ্গলবার সে মারা যায়।
এদিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে ছাড়পত্র দেয়ার সময় পরিবারের সদস্যদের সতর্ক করা বলা হয় যেনো এ রোগী কাউকে ছুঁতে না পারে। যদি কাউকে সে ছুয় বা খামছি দেয় কিংবা মুখের লালা লাগায় কারো শরীরে তাহলে তাদেরও জলাতংক রোগের জীবানু প্রবেশের সম্ভাবনা রয়েছে।
জড়না বেগম মৃত্যুর পর এখন পরিবারের অন্য সদস্যরাও আতঙ্কে রয়েছে। সন্তানরা মায়ের হাতের খাবার খেয়েছে স্বামীর সাথে চলাফেরায় সংস্পর্শে গিয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য