বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সাদা সিংহ দম্পতির ঘরে নতুন অতিথি

সাইফুল আলম সুমন,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে এক নতুন সাদা সিংহ শাবকের জন্ম হয়েছে। গত ২৪ মে (বৃহস্পতিবার) তাদের পরিবারে আরো এক নতুন সদস্য জন্ম নিয়েছে। আফ্রিকা থেকে কয়েক দফায় সাতটি সাদা সিংহ আনা হয়েছিল। তার মধ্যে নানা প্রতিক’লতায় রোগে ভুগে তিনটি সিংহ মারা গেছে। বর্তমানে এ পার্কে চারটি সাদা সিংহ রয়েছে। এদের মধ্যে দুইটি মাদি ও দুইটি পুরুষ। তাদের পরিবারে জন্ম নেয়া আরো এক নতুন সদস্যকে বুধবার মায়ের সঙ্গে ঘুরতে দেখা গেছে। এনিয়ে পার্কে সাদা সিংহের সংখ্যা হলো-৫টি।

সাফারি পার্কের বন্যপ্রাণি সুপারভাইজার মো.সারোয়ার হোসেন খান বলেন, ২০১৩ সাল থেকে ২০১৬সালের মধ্যে আফ্রিকা থেকে ৭টি সাদা সিংহ আনা হলেও বিভিন্ন রোগে ভুগে তাদের মধ্যে তিনটি মারা যায়। পরে এ দুই দম্পতির ঘরে ২০১৬সালে দুইটি বাচ্চার জন্ম হয়। কিন্তু এক বছরের মধ্যে ওই দুইটি বাচ্চাও মারা যায়। এর প্রায় দুই বছর পর চলতি বছরের মে মাসের শেষ সপ্তাহের কোন এক সময় এ পার্কে আবার জন্ম নিল একটি শ্বেত সিংহ শাবক। জন্মের সময় বাচ্চাদের সাধারণত চোখ ফুটেনা। এদের চোখ ফুটতে ৩-১১দিন সময় লাগে। জন্মের সময় এদের ওজন ১-৫কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এসময় বাঘিনী বাচ্চাকে নিয়ে লোকালয়ের আড়ালে রেখে নিবিড় পর্যবেক্ষনে রাখে এবং সেখানে অন্যসঙ্গীদের পর্যন্ত যেতে দেয় না। শাবকরা ১০-১৫দিনে হাটতে শেখে। ৪-৫মাস বয়স থেকে মায়ের দুধের পাশপাশি অন্য খাবার খাওয়ানো শেখায়না হয়। এরা প্রায় বছর দুয়েক পর্যন্ত মায়ের কাছাকাছি থাকে। এদের প্রধান খাদ্য গো মাংস ও প্রতি শুক্রবার জীবিত খরগোস দেয়া হয়। প্রায় দেড় মাস পর মা সিংহটি বাচ্চাটি নিয়ে প্রকাশ্যে নিয়ে এলে তা পার্ক কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। শাবকটি মায়ের সঙ্গে ঘুরে বেড়াচ্ছে। সাদা শাবকসহ মা বাঘটিকে দেখে পর্যটকদের মধ্যে বেশ উৎসাহ লক্ষ করা গেছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল মোতালেব জানান, সাদা সিংহ কিন্তু আলাদা কোন প্রজাতির সিংহ নয়। এদের দেহে চিনচিলা নামে এক ধরণের জিন থাকে। এ জিনের উপস্থিতির কারণে এদের বর্ণ হয় সাদা। এদের শরীরের রং সাদা হলেও চোখের রং সোনালী, নীলচে-ধূসর এমনকি নীলও হতে পারে। মা এবং বাবা সিংহের দেহে চিনচিলা জিন থাকলে তাদের শাবক কেবল সাদা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে বেশি। এদের দেখা মিলে সাধারণত দক্ষিণ আফ্রিকায়। সকল বৈশিষ্ট্য বাদামী সিংহের মত হলেও এরা হিং¯্রতায় এবং আকারে ও ওজনে তাদের চেয়ে বেশি হয়। সাদা শাবকগুলো দেড় থেকে দুই বছরের বাচ্চাগুলো প্রজননক্ষম হয়। এদের আয়ুষ্কাল পুরুষ ১০-১২বছর এবং মাদি ১২-১৩বছর। পূর্ণ বয়ষ্ক মাদি সিংহের দৈর্ঘ ৪ফুট, ওজন ১৫০-২০০কেজি এবং পুরুষদের বেলায় দৈর্ঘ ৬ফুট ও ওজন ২০০-৩০০কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এ পার্কে সাদা সিংহ ছাড়াও ১৬টি ব্রাউন সিংহ রয়েছে। প্রতিদিন পর্যটকরা কোর সাফারি পার্কে থাকা এসব জন্তু দেখতে ভিড় জমিয়ে থাকে। দিন দিন এখানে প্রাণিরা শাবক জন্ম দিচ্ছে, পর্যটকদের আকর্ষন বাড়ছে। আয় বাড়ছে পার্কের।

মন্তব্য

মন্তব্য