আইসোলেশন না মানলে ইংল্যান্ডে ১০ হাজার পাউন্ড জরিমানা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইংল্যান্ডে সেলফ আইসোলেশন না মানলে সর্বোচ্চ ১০ হাজার পাউন্ড (১৩ হাজার ডলার, ১১ হাজার ইউরো) জরিমানা গুনতে হবে। দেশটিতে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ করতে এমন পদক্ষেপ নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর এএফপি।

সাম্প্রতিক সময়ে ইংল্যান্ডে করোনার প্রকোপ বাড়তে শুরু করেছে। ফলে শনিবার নতুন করে কড়াকড়ি ঘোষণা করা হয়েছে। চলতি সপ্তাহে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, ব্রিটেনে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়ে গেছে। সে কারণে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল, উত্তরাঞ্চল এবং কেন্দ্রীয় ইংল্যান্ডে কয়েক লাখ মানুষের ওপর নতুন করে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।

শনিবার আরও পরের দিকে নতুন করে বিধি-নিষেধ জারি করা হয়। সেখানে বলা হয়েছে, আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে কারও করোনার লক্ষণ দেখা দিলে বা করোনা পজিটিভ ধরা পড়লে অবশ্যই সেলফ আইসোলেশনের নিয়ম কানুন মেনে চলতে হবে।

বরিস জনসন এক বিবৃতিতে বলেন, এই ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করার সর্বোত্তম উপায় হচ্ছে সবার সেলফ আইসোলেশন এবং বিভিন্ন বিধি-নিষেধ মেনে চলা। তিনি আরও বলেন, এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি কারও অবহেলা করা উচিত নয়।

সম্প্রতি যেসব লোকজনের দেহে করোনার লক্ষণ ধরা পড়েছে বা করোনা পজিটিভ এসেছে তাদের ১০ দিনের জন্য সেলফ আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে। অপরদিকে কারো করোনার লক্ষণ আছে বা করোনা পজিটিভ এমন লোকজনের সংস্পর্শে থাকলে ১৪ দিনের সেলফ আইসোলেশনে থাকতে হবে।

অন্যদেশে ভ্রমণের পর কোয়ারেন্টাইন লঙ্ঘন করলেও জরিমানা গুনতে হবে। এই জরিমানা শুরু হবে ১ হাজার পাউন্ড থেকে। একই ভুল দ্বিতীয়বার করলে জরিমানা সর্বোচ্চ ১০ হাজার পাউন্ড পর্যন্ত হতে পারে।

ব্রিটেনে এখন পর্যন্ত প্রায় ৪২ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। ইউরোপে মহামারি শুরুর পর এখন পর্যন্ত ব্রিটেনেই সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে ব্রিটেনে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৯০ হাজার ৩৫৮।

মন্তব্য

মন্তব্য