জার্মানিতে ঠাঁই পাচ্ছেন গ্রিসের ১৫০০ শরণার্থী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
গ্রিসের বিভিন্ন দ্বীপের শরণার্থী শিবিরের দেড় হাজার শরণার্থীকে জার্মানিতে ঠাঁই দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল। মঙ্গলবার দেশটির সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, গ্রিসের শরণার্থী শিবিরগুলোর দেড় হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশীকে নেয়ার পরিকল্পনা করছে জার্মানি। এছাড়াও মোরিয়া শরণার্থী শিবিরের সঙ্গীহীন আরও প্রায় দেড়শ শিশু জার্মানিতে আশ্রয় পাবে।

চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল এবং দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হোর্স্ট সিহোফারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, যারা ইতোমধ্যে শরণার্থীর স্বীকৃতি পেয়েছেন তাদের গ্রহণ করবে বার্লিন। এতে যেসব পরিবারে শিশু আছে তারা বেশি অগ্রাধিকার পাবেন।

মেরকেলের ডান ও বামপন্থী জোট সরকার অভিবাসনপ্রত্যাশীদের গ্রহণের ব্যাপারে আলোচনার পরিকল্পনা করছে। বুধবার সোস্যাল ডেমোক্র্যাটস পার্টির সঙ্গে এ ব্যাপারে একটি চুক্তি সাক্ষরের কথা রয়েছে।

গত সপ্তাহে গ্রিসের বৃহত্তম শরণার্থী শিবির লেসবস দ্বীপের মোরিয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। এতে ওই শরণার্থী শিবির প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়। ভয়াবহ এই বিপর্যয়ে সাড়ে ১১ হাজার গৃহহীন শরণার্থী রাস্তায় দিনাতিপাত করছেন। এসব শরণার্থীকে জার্মানিতে আশ্রয় দিতে মেরকেল সরকারের ওপর চাপ বাড়ছে।

জার্মান গণমাধ্যম বলছে, মোরিয়া দ্বীপের অভিভাবকহীন দেড়শ শিশুকে গ্রহণে দ্বার উন্মুক্ত করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বার্লিন। কিন্তু আরও বেশি শরণার্থীকে গ্রহণে জার্মানির এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে অ্যাথেনস।

দৈনিক বিল্ডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এটি করার ফলে ইউরোপের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশটিতে ঠাঁই পাওয়ার আশায় গ্রিসের শরণার্থী শিবিরে এখন আরও বেশি আগুন ধরিয়ে দিতে প্ররোচিত হতে পারেন অভিবাসনপ্রত্যাশীরা।

মন্তব্য

মন্তব্য