কালীগঞ্জে পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার (পিপিএম) এর খাদ্যসামগ্রী পেলো ৪শ পরিবার

মো: ইব্রাহীম খন্দকার,সিনিয়ার রিপোর্টার:
কালীগঞ্জে কোভিড-১৯ সংক্রমণে লকডাউন থাকার কারণে স্থানীয় রিক্সা চালক, নৌকার মাঝি, শীল ও কাজের বুয়ারা শত অভাব অনটনের মাঝেও কাজে বের হতে পারছেনা। এমন পরিস্থিতিতে তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘম করতে জেলা পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার (পিপিএম) নির্দেশে, কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ মোজাহিদুল ইসলাম বাসস্টেন্ডের বাস চালক, সি এন জি ও ইজি বাইক চালকদের মধ্যে ৪০ জনকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোজাহিদুল ইসলাম বলেন, কালীগঞ্জে ও সারা দেশের ন্যায় মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউন চলছে। এই কারণে স্থানীয় রিক্সা চালক, বাস চালক, নৌকার মাঝি, শীল ও কাজের বুয়ারা শত অভাব অনটনের মাঝেও কাজে বের হতে পারছেনা। এমন পরিস্থিতিতে কোভিড-১৯ মোকাবেলা করতে এবং এই অসহায় মানুষ গুলোর কষ্ট কিছুটা লাঘম করতে, গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার(পিপিএম) এর নির্দেশে, কালীগঞ্জ ও কাপাসিয়া সার্কেল অফিসার পঙ্কজ দত্তের নেতৃত্বে, ইতি মধ্যে আমাদের থানা পুলিশের মাধ্যমে কর্মহীন ৩শত ৬০ জনের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন,  কোভিড-১৯ মোকাবেলায় ইতিপূর্বে কালীগঞ্জ থানা পুলিশের পক্ষ থেকে, সরকারি লকডাউনের পাশাপাশি কালীগঞ্জের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, যানবাহন ও হাট-বাজার বন্ধ করা হয়েছে। এতে কালীগঞ্জ বাসী আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও তাদের মনে রাখতে হবে- “টাকার চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশী”।কোভিড-১৯ প্রতিরোধে “আপনারা সাবাই ঘরে থাকুন, আপনি নিজে বাচুঁন, আপনার পরিবার পরিজনকে বাচঁন, অন্যকে বাচাঁর সুযোগ দিন” এর ধারাবাহিকতায় আজ কালীগঞ্জ বাসস্টেন্ডের ৪০ জন গাড়ি চালকদের মধ্যে চাল, ডাল, আলু ও তেল ইত্যাদি খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে প্রায় ৪শত মানুষের মাঝে পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার (পিপিএম) স্যারের দেওয়া খাদ্যসামগ্রী পৌঁছাতে পেরেছি। পাশাপাশি এর ধারা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।
এই সময় উপস্থিত ছিলেন, কালীগঞ্জ পৌর যুবলীগের সভাপতি মো: বাদল হোসেন প্রমুখ।

মন্তব্য

মন্তব্য