বোরহানউদ্দিন কিন্ডার গার্টেন ও নূরানী মাদ্রাসার শিক্ষকদের মানবেতর জীবন

বোরহানউদ্দিন (ভোলা) প্রতিনিধিঃ
করোনার প্রভাবে দেশে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ভোলা বোরহানউদ্দিন উপজেলার কিন্ডার গার্টেন ও নূরানী মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫শত শিক্ষক মানবেতর জীবন যাপন করছেন। গত দুই মাস প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার ফলে শিক্ষকদের বেতন দিতে পারছে না। অন্যদিকে প্রতিষ্ঠানের ঘর ভাড়া নিয়ে হতাশায় দিন কাটছেন শিক্ষকদের।
সূত্রমতে জানা গেছে, বোরহানউদ্দিন উপজেলায় কিন্ডার গার্ডেন ও নূরানী মাদ্রাসা সহ ৪৫ টি প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৫শত শিক্ষক রয়েছে। এসকল প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ঘর না থাকায় ওই প্রতিষ্ঠান গুলো ভাড়ায় চালিত হয়। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে গত ২ মাস ওই সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় কারণে চরম কষ্টে জীবন যাপন করছেন ওই সকল প্রতিষ্ঠানের আয়ের উপর নির্ভরশীল থাকা শিক্ষকরা। প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা ২ মাসের বেতন দিচ্ছে না। এতে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের বেতন দিতে পারছে না প্রতিষ্ঠান প্রধানরা। অন্যদিকে প্রতিষ্ঠানের ঘর ভাড়া নিয়ে তাদের চোকে মুখে দু:চিন্তার ছাপ দেখা দিয়েছে। কিভাবে তারা এ সংকট মোকাবেলা করবে। তাদের দাবী যদি প্রতিষ্ঠানের ঘরের মালিক গুলো দুই মাসের ভাড়া মওকুফ করতো তাহলে তারা একটি স্বস্থি পেতো। এদিকে এদের মধ্যে ২৭ জন শিক্ষক কে বোরহানউদ্দিন পৌর মেয়র ২০ কেজি করে খাদ্য সামগ্রী দেন।
ইসলামী আর্দশ একাডেমী’র প্রধান মো: মামুন জানান, শিক্ষার্থীরা অভিভাবকরা বেতন না দেওয়ায় শিক্ষকদের বেতন দিতে পারছি না। গত ২ মাসের প্রতিষ্ঠানের ঘর ভাড়া নিয়ে বেশি দু:চিন্তায় রয়েছি।
বাধঁন স্কুলের শিক্ষক নোমান জানান, প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার ফলে এ প্রতিষ্ঠানের উপর নির্ভরশীল শিক্ষকরা পরিবার পরিজন কে নিয়ে নানা কষ্টের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।
এব্যাপারে বোরহানউদ্দিন উপজেলা কিন্ডার গার্টেন এসোসিয়েশন এর সম্পাদক মো. বশার জানান, প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকার ফলে শিক্ষকদের বেতন ও প্রতিষ্ঠান ঘর ভাড়া নিয়ে আমরা হতাশায় রয়েছি। যদি ঘর মালিকগুলো প্রতিষ্ঠানের ভাড়া মওকুফ করতো তাহলে আমরা একটু স্ব:স্থি পেতাম।

মন্তব্য

মন্তব্য