করোনা দুর্যোগে কর্মহীন মানুষেরা ত্রাণ না পেয়ে মানববন্ধন করেছে কুপতলায়

রওশন হাবিব,গাইবান্ধা প্রতিনিধি//
করোনা দুর্যোগে কর্মহীন ঘরে বসা থাকা অসহায় দুঃস্থ মানুষরা ত্রাণ না পেয়ে কুপতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও মেম্বার কামরুল ইসলামের অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।
রবিবার (২৬ এপ্রিল) গাইবান্ধা সদর উপজেলার কুপতলা ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর-সুন্দরগঞ্জ সড়কের ৭৫নং রেলগেট এলাকায় স্থানীয় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসির উদ্যোগে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রায় ২ শতাধিক মানুষ অংশ নেয়। পরে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মো. শাহরিয়ার সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, সাদেক আলী, বাবু প্রামানিক, তারাজুল ইসলাম, মো. সাকা মিয়া, আবু সাঈদ, রফিক মিয়া, আব্দুর রউফ, তাজুল ইসলাম, হারুন চৌধুরী, নুরুল ইসলাম প্রমুখ। বক্তারা জানান, করোনা ভাইরাসের প্রায় দেড় মাস অতিবাহিত হলেও আজ পর্যন্ত তারা এক কেজি চালও ত্রাণ পায়নি। বিভিন্ন পত্রপত্রিকা, টেলিভিশন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেখে আসছি বর্তমান সরকার এই দুর্যোগের সময় ঘরে বসে থাকা কর্মহীন অসহায় মানুষদের নানা রকম সাহায্য সহযোগিতা করে আসছেন। কিন্তু আমাদের এই কুপতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও ্র মেম্বার কামরুল ইসলাম ত্রাণ সামগ্রী তুলে তারা নিজেরাই আত্মসাৎ করে আমাদেরকে ত্রাণ বঞ্চিত করছেন।
বক্তারা আরও বলেন, ইতোপূর্বে তাদের কাছ থেকে ৩/৪ বার আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়েও আজ পর্যন্ত এই এলাকায় একজন ব্যক্তিকেও কোন ত্রাণ দেয়া হয়নি। তাই বক্তারা উক্ত চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও তাদের অপসারণ দাবি করেন এবং এই অসহায় মানুষদেরকে সেনাবাহিনীর মাধ্যমে জরুরী ভিত্তিতে ত্রাণ সামগ্রী দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন।
এ ব্যাপারে চেয়ারম্যানের সাথে যোাগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তা সঠিক নয়।আমি সরকারি যতটুক বরাদ্দ পেয়েছি তা সঠিক ভাবে সকলের মধ্যে বিতরন করেছি। যারা এখনো ত্রান পান নাই তাদের তালিকা করে ইউ.এন.ও অপিসে জমা দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য