গলাচিপায় করোনা ঝুঁকিতেও  চিকিৎসায় অবদান রাখছে ডিপ্লোমা চিকিৎসকরাও 

মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল, গলাচিপা(পটুয়াখালী)  //   
পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় চিকিৎসক (এমবিবিএস, বিডিএস ও ডিএমএফ) সহ স্বাস্থ্যসেবা সাথে সংশ্লিষ্ট সবাই অক্লান্তভাবে লড়াই করছে উপজেলার ৩লক্ষ জনগনকে সুস্থ রাখতে। ডিপ্লোমা চিকিৎসক প্রান্তিক পর্যায়ে জনগণের সেবা প্রদান করে থাকেন।
 উপজেলায় ১২টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় প্রায় ৩ লক্ষ লোকের বসবাস, “কোভিড-১৯” চিকিৎসায় শুধু ব্যাচেলর চিকিৎসক এবং নার্স নয়, চিকিৎসার সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত বিএমডিসি রেজিস্টার্ড মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট প্রাকটিশনার তথা ডিপ্লোমা চিকিৎসক উপসহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারগন। যেকোনো স্বাস্থ্য সংকটে নিরলসভাবে চিকিৎসা সেবা  দিয়ে যাচ্ছেন গলাচিপার প্রতিটি ইউনিয়ন, উপজেলা জনসাধারণের চিকিৎসক হিসেবে জনগণের কাছে থাকায় প্রাথমিকভাবে তাদের কাছেই আক্রান্ত রোগী আসে।যেখানে শহরের বিভিন্ন নামীদামী চিকিৎসকেরা অনুপস্থিত কিংবা চিকিৎসা সেবা দিতে অনিচ্ছুক সেখানে বিভিন্ন অনুসন্ধানে জানা যায়, সরকারি উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারদের পাশাপাশি  ডিপ্লোমা চিকিৎসক ও বেকার ডিএমএফরা নিয়মিত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। উপসহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডাক্তার  এইচ এম শাহীন মাহমুদ, কলাগাছিয়া উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্র ডাঃ তৈমুর রেজা মাসুম, রতনদি তালতলি উপ স্বাস্থ্য কেন্দ ডাঃ ইমানুল ইসলাম জুয়েল, চালিতাবুনিয়া উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডাঃ শাখাওয়াত হোসেন, রাঙ্গাবালী উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডাঃ রেজাউল করিম, চরবিশ্বাস উপ স্বাস্থ্য কেন্দ মোঃ শাহিন, ছোট বাইসদিয়া উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডাঃ ফিরোজ মাহমুদ বলেন, মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশক্রমে দেশের এই ক্লান্তিলগ্নে ডাক্তার ও নার্সদের পাশি পাশি এই ডিপ্লোমা চিকিৎসক সমান ভাবে সেবা দিয়ে আসছে এবং ডিপ্লোমা চিকিৎসক সব থেকে বেশি সেবা মূলক পরামর্শ দিয়ে থাকি আমরা তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের  চাওয়া দেশের এই ক্রান্তি মুহূর্তে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আমাদের বঙ্গবন্ধুর পঞ্চবার্ষিকী (১৯৭৩-১৯৭৮)পরিকল্পনার অংশ হিসেবে উচ্চশিক্ষা ও পদোন্নতির ব্যবস্থা করার সহদ ডিপ্লোমা চিকিৎসক তথা উপ সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল  অফিসারদের এই মুজিব বর্ষে ১০ম গ্রেড প্রদান করার জন্য জোর অনুরোধ জানাচ্ছি। উপজেলা স্বাস্থ্য  কর্মকর্তা ডাক্তার মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, গলাচিপা উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের সাবসেন্টার সহ ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ওপরিবার কল্যাণ কেন্দ্র ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাহসহ আউটডোরে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আমি তাদের আগামী সুন্দর জীবনের মঙ্গল কামনা করছি।

মন্তব্য

মন্তব্য