পথে পথে ক্ষুধার্তদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম জেলা ব্যুরো //
প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস আতঙ্কে থমকে গেছে পুরো বিশ্ব। এ ভাইরাস সংক্রমণ রোধে মানুষের এখন একমাত্র নিরাপদ স্থান হচ্ছে ঘর। ঘরে অবস্থান করার ফলে উপার্জনহীন হয়ে পড়েছে দরিদ্র ও অসহায় মানুষ। এসব মানুষ খাবারের সন্ধানে আশ্রয়স্থল হিসেবে বেচেঁ নিয়েছে ফুটপাত। ফুটপাতে এসব মানুষকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মানবতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রাম। প্রতিনিয়ত অসহায়, মধ্যবিত্ত ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে উপহার স্বরূপ খাদ্য সামগ্রী হিসেবে চাউল, ডাল, সবজিসহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য বিতরণ করা হচ্ছে। সংকট চলাকালীন রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের এসব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। চলমান মানবিক সহযোগিতার কার্যক্রমের অংশ হিসেবে অদ্য ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. শেখ শফিউল আজম ও সিটি রেড ক্রিসেন্টের ভাইস চেয়ারম্যান এম.এ.ছালাম এর তত্ত্বাবধাণে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে নগরীর আন্দরকিল্লা মোড়, লালদিঘী, কোতোয়ালী মোড়, নিউ মার্কেট মোড়, সদরঘাট, কদমতলী, পাঠানতুলী, চৌমুহনী, আগ্রাবাদ, বন্দর, স্টীলমিল, বড়পুল, ছোটপুল, সিআরবি, লালখান বাজার, দামপাড়া, পূর্ব নাসিরাবাদ, বহদ্দারহাট, চকবাজার, গণিবেকারী, রহমতগঞ্জ এলাকায় যুব স্বেচ্ছাসেবকরা কাজের সন্ধানে বের হওয়া মানুষ, ভাসমান মানুষ, পথে পথে ক্ষুধার্তদের মাঝে শুকনা খাবার ও পানি বিতরণ করে। উক্ত কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব উপ প্রধান ২ মোঃ মঈনুল ইসলাম, সিনিয়র যুব সদস্য জৌতিময় ধর, প্রশিক্ষণ বিভাগীয় উপ প্রধান মাহফুজুর রহমান, যুব সদস্য মোঃ আবদুর রহমান অপি।
কোভিড ১৯ প্রতিরোধে প্রতিনিয়ত মানুষের সেবা দিয়ে থাকছে যুব স্বেচ্ছাসেবকরা। নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
এছাড়াও চট্টগ্রাম জেলা কারাগারের প্রবেশপথে ইনফ্রা রেড থার্মোমিটারের মাধ্যমে কারা কর্তৃপক্ষ ও কয়দী দর্শনার্থীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা ও জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো হয়।
উল্লেখ্য যে, নিরাপত্তার উপর ভিত্তি করে যুব রেড ক্রিসেন্ট কার্যালয়ের প্রবেশপথে ইনফ্রা রেড থার্মোমিটারের মাধ্যমে যুব স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হয় এবং যুব স্বেচ্ছাসেবক, তাদের পরিবারের সদস্য ও জনসাধারণের সু-চিকিৎসা নিশ্চিত করা যায় তার জন্য যে সকল যুব সদস্য ডাক্তার রয়েছে তাদের নিয়ে ইতিমধ্যে একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়। এসকল ডাক্তার ২৪ ঘণ্টা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তাদের চিকিৎসা সেবা প্রদান অব্যাহত রেখেছে।

মন্তব্য

মন্তব্য