গাইবান্ধায় জনোমনে আতস্ক ২ জনের মৃত্যু, নমুনা সংগ্রহ, পরিবার কোয়ারেন্টিনে

রওশন হাবিব,গাইবান্ধা প্রতিনিধি //
গাইবান্ধায় করোনা উপসর্গ নিয়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা করোনা আকান্ত হয়ে মারা গেছে কিনা তা নিশ্চিত হতে গাইবান্ধা স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। সেই সঙ্গে নিহত দুইজনের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
সদর উপজেলার গিদারী ইউনিয়নের চরুয়া পাড়ায় জ্বর, সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত হয়ে একজন কৃষক (২৮) মারা গেছেন। নিহতের ভাই জানান, মৃত ওই কৃষক নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন কয়েকদিন হলো। গুরুতর অসূস্থ হলে গতকাল শনিবার (১৮ই এপ্রিল) বিকালে তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজে নেয়া হলে সেখানে মারা যান তিনি।এদিকে, শনিবার রাতে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের রঘুনাথপুরে একই উপসর্গ নিয়ে একজন ট্রলি চালক (৩২) মারা গেছেন। রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান, নিহত ব্যক্তি কযেকদিন ধরে জ্বর, সর্দিতে আক্রান্ত হয়ে ছিলেন।
নিহত দুই ব্যক্তি করোনা আকান্ত হয়ে মারা গেছে কিনা তা নিশ্চিত হতে গাইবান্ধা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে মৃতদেহ দুটি থেকে নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন গাইবান্ধা সিভিল সার্জন ডা. এবিএম আবু হানিফ। সেই সঙ্গে নিহত দুইজনের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।এদিকে, গাইবান্ধায় গত ২৪ ঘন্টায় নারায়ণগঞ্জসহ আক্রান্ত বিভিন্ন এলাকা থেকে ফেরত আসা নতুন ৯৩ জনসহ হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন ১৭২০ জন। কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ১২৯ জনকে। এছাড়াও ব্রহ্মপুত্র নদের দুইটি চরে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন ৭৮ জন। আইসোলেশনে আছেন ৯ জন।

মন্তব্য

মন্তব্য