সন্দ্বীপে এমপি মিতার ভালোবাসার উপহার,আরো চার হাজার পাঁচশত পরিবারকে ত্রান সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন। 

চট্টগ্রাম জেলা ব্যুরো //
সন্দ্বীপের সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা দ্বিতীয় বারের মতো করোনা পরিস্থিতিতে নিন্ম মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত সহ মোট চার হাজার পাঁচ শত পরিবারকে তার ভালোবাসার উপহার দ্রুতগতিতে পৌছে দেওয়ার কথা জানালেন সন্দ্বীপ প্রেসক্লাবে সংবাদ ব্রিফিং-এ ।
তিনি করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন শুরু হওয়ার পর প্রথম ধাপে সম্পর্ন ব্যক্তিগত  তহবিল থেকে হতদরিদ্র  তিন হাজার পাঁচ শত পরিবারকে ত্রান সহায়তা পৌঁছে দিয়েছেন।
এরপর এবার দ্বিতীয় ধাপে চিন্তা করলেন মধ্য বিত্ত ও নিন্ম মধ্য বিত্তদের কথা। যে সমস্ত পরিবারে পরিবার প্রধান বিদেশে অবস্থান করছে বা যারা ছোটখাট চাকুরি ও ব্যবসা করে জীবন অতিবাহিত করতো যারা লজ্জায় কারো কাছে ত্রান সহযোগিতা চাইতে পারেনা এমন বিষয়টি ভাবার পর উপজেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন কর্মীদের সহযোগিতায় হটলাইনে যোগাযোগের মাধ্যমে যারা নীরবে ত্রান গ্রহন করতে ইচ্ছুক তাদের তালিকা প্রস্তুত করেছেন।
আর সেই তালিকা ধরে তার ভালোবাসার উপহার হিসেবে একদল হোন্ডারোহীদের সাহায্যে সে সমস্ত ঘরে ঘরে দ্রুত পৌঁছানো শুরু করেছেন আজ থেকে।তাতে সার্বিক নির্দেশনায় রয়েছে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাঈন উদ্দীন মিশন ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহফুজুর রহমান সুমন।
 তিনি সন্দ্বীপ প্রেসক্লাবে সংবাদ ব্রিফিং-এ বলেন আমার প্রবাসী ভাইয়েরা লকডাউনের কারনে উপার্জনহীন হয়ে পড়েছেন। তাদের পরিবার এখন কষ্টে করছে। তাই তাদের কষ্টের ভাগিদার হওয়া বা তাদের বিপদে পাশে থাকার জন্য সম্পুর্ন আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে এ উপহার প্রদান করছি। এ উপহার পৌঁছাতে ৭/৮ দিন সময় লেগে যেতে পারে।আমি আমার পাশাপাশি যারা বিত্তবান রয়েছেন তাদেরও কঠিন পরিস্থিতি মোকাবেলায় ত্রান সহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানাই।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলেন ওনার পিতা দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমান আজীবন মানুষের সংকটময় মুহুর্তে পাশে থেকে দ্বীপবন্ধু উপাধী পেয়েছেন আর একই চিন্তা ওনার মাধ্যমে প্রতিফলনের কারনে তিনি দ্বীপরত্ন হিসেবে ইতিমধ্যে সন্দ্বীপের জনগনের মাঝে স্থান করে নিয়েছেন। ওনার এ দানের হাত আরো প্রসারিত হবে এটাই সবার প্রত্যাশা।

মন্তব্য

মন্তব্য