গলাচিপায় এক চৌকিদারকে ভিজিএফ চাল বিক্রি করায় এক মাস কারাদন্ড সহ এক ইউপি সদস্যর বিরুদ্দে মামলা

মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল, পটুয়াখালী  //
করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় গলাচিপায় সরকারী চাল বিক্রির দায়ে গ্রাম পুলিশকে ১ মাসের কারাদন্ড। ও এক ইউপি মেম্বারের বাড়ীর পুকুর পারে ঝোপের মধ্যে তিন বস্তা সরকারী চাল পাওয়ায়, মেম্বারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের।
গত কাল সোমবার বিকাল চার টায় গলাচিপা সদর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের স্থানীয় মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে গলাচিপা ইউ এন ওরতনদী ইটবাড়ীয়া বাজারে অনুসন্ধানে গেলে স্থানীয় টম টম চালক সাওয়ালের উপস্থিত জবানবন্দি ও চাল ক্রেতা বশার এর কাছ থেকে তথ্য যেনে ইউ এন ও ,শাহ মোঃ রফিকুল ইসলাম, গ্রাম পুলিশ (চৌকিদার) মোঃ নুরুল ইসলাম গাজীকে সরকারী নিয়ম ভঙ্গ করায়, ভ্র্যাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এক মাসের কারা দন্ড দেয়। অভিযান পরিচালনার সময় কতিপয় যুবকেরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে স্থানীয় মেম্বার মহিউদ্দিন (মোহন) এর বাড়ির পুকুর পারে ঝোপের মধ্যে তিন বস্তা সরকারী চাল লুকিয়ে রাখার অভিযোগ করলে তাৎক্ষনিক ভাবে ঘটনা স্থলে যেয়ে সত্যতা খুজে পায়। পরে ইউ এন ও গলাচিপা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল ইসলাম কে ঘটনাটি জানায় এবং ঘটনা স্থলে আসার অনুরোধ করেন। পরে থানার ওসি, পুকুর পার থেকে প্লাস্টিকের তিন বস্তা চাল (আনুমানিক ৩ মন) জব্দ করে এবং এ ব্যাপারে গলাচিপা থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের হয়েছে।চাল জব্দের সময় স্থানীয় মেম্বার’কে তার বাড়ীতে পাওয়া যায়নি। সংবাদকর্মীদের কাছে মেম্বারের স্ত্রী জানান যে, কে বা কাহারা এই চাল লুকিয়ে রেখেছে তা জানিনা। এদিকে গলাচিপা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ হাবিবুর রহমান হাদী খলিফা কে ঘটনাস্থানে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি দ্বায়ভার জববাব দিয়ে কেটে পরেন।
এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল  ইসলাম বলেন আইন অনুযায়ী মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান।

মন্তব্য

মন্তব্য