জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের কালীগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় শিশুসহ আহত-৬

মো: ইব্রাহীম খন্দকার,সিনিয়র রিপোর্টার //
গাজীপুরের কালীগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের প্রতিপক্ষের হামলায় শিশু, শিক্ষার্থীসহ ৬ জন আহত হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে কালীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিন রাজনগর এলাকায়।
এ ব্যাপারে ওই শিক্ষার্থীর বাবা মামুন মিয়া বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বাদী জানান অভিযোগ তুলে নেয়ার জন্য আসামীরা বিভিন্ন হুমকি দিচ্ছে। অভিযোগ তুলে না নিলে স্কুল শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান ও তামীম কে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলবে বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আজেদা বেগমের চাচাত্ব ভাই আঃ আউয়াল, ওসমান, রমজানসহ মোস্তাফিজুর রহমান, হীরণ, মাহবুব দীর্ঘদিন যাবৎ তার জমি জবর দখল করে নেওয়ার জন্য পায়তারা করে আসছিল। গত ৮ এপ্রিল সকালে অভিযুক্তদের সাথে আজেদার বেগমের কথা কটাকাটি হয়। পরে ওই দিনে দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে ৭ টার দিকে তার স্কুল পুড়ুয়া নাতি মেহিদী হাসান (১৩) নামাজ পড়ার উদ্যোশে বাড়ি থেকে মসজিদে যাওয়ার পথে সিরাজুলের সবজিক্ষেতের পার্শে পৌছলে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা হিরণ, মাহবুব, রমজান, ওসমান ও আউয়াল ওই শিক্ষার্থীর উপর অর্তকৃত হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে তার ডাক চিৎকারে বাড়ির লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এদিকে আহত ওই শিক্ষার্থীর বাড়ীতে পুরুষ লোক না থাকায় হিরণ, মাহবুব, রমজান, ওসমান ও আউয়াল পুনরায় সারে ৯ টার দিকে আজেদা বেগমের বাড়ীতে হামলা চালায়। এসময় বাড়ীতে থাকা শিশু শিক্ষার্থী তামীম (৭) স্কুল পুড়–য়া রিয়া আক্তার (১৩), সোনিয়া (২৫), হযরত আলী (৩৫) ও তার মা বৃদ্ধা আজেদা বেগম (৭০) কে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। তার ঘরে থাকা সুকেজ সহ বিভিন্ন জিনিস ভাংচুর করে এবং তার সুকেজের ডয়ারে থাকা ১৩ হাজার টাকা ও স্বর্ণালংকার সহ বিভিন্ন লুটপাট করে নিয়ে যায় বলেও অভিযোগ রয়েছে।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার এস.আই সওকত জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে গিয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য