সুন্দরগঞ্জে পাঁচ জনের নমুনা সংগ্রহ, বাড়ি লকডাউন

রওশন হাবিব,গাইবান্ধা প্রতিনিধি //
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে করোনাভাইরাসের সংক্রামক সন্দেহে চার জন ও মৃত এক ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এতে করোনা সন্দেহে ওই পাঁচ ব্যক্তির বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।
শুক্রবার (১০ এপ্রিল) সকালে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ায় ওই পাঁচ জনের নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিক্যাল টিম।নমুনা পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।গত কয়েক দিন যাবত সর্দি-জ্বর ও গলাব্যাথায় ভুগছিলেন এ চার ব্যক্তি। এরমধ্যে স্বাস্থ্যকর্মী এক দম্পতি ও ঢাকা ফেরত দুই নারী রয়েছে। তাদের শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিলে স্বাস্থ্য বিভাগকে খবর দেয় এলাকাবাসী।খবর পেয়ে সকালে ওই চার ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা করে মেডিক্যাল টিম। নমুনা সংগ্রহের পর পিসিআর টেস্টের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।
এ ছাড়াও বুধবার শ্বাসকষ্ট নিয়ে এক বৃদ্ধ (৬৫) মারা যায়। খবর পেয়ে তাঁরও নমুনা সংগ্রহ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। পরে রাতেই ওই ব্যক্তির লাশ পৌর এলাকার সরকারি কবরস্থানে কবর দেন উপজেলা লাশ দাফন কমিটি। লকডাউন করা হয়েছে তাদের বাড়ি এবং পরিবারের সবাইকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আশরাফুজ্জামান সরকার বলেন, করোনা আক্রান্ত সন্দেহে চারজন ও মৃত এক ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগামীকাল রমেক হাসপাতাল থেকে ফলাফল আসলে জানা যাবে তারা করোনা আক্রান্ত কি না। তবে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়া পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
গাইবান্ধায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন হোম কোয়ারেন্টাইন দেওয়া হয়েছে ১১১ জনকে।কোয়ারেন্টাইন শেষ হওয়ায় ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ১ জনকে।বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে মোট ৩০৬ জন এবং নতুন ৭৯ জনসহ প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৮০ জন। আইসোলেশনে রয়েছেন ৫ জন।

মন্তব্য

মন্তব্য