নেক্সটনিউজ পত্রিকার সম্পাদক,অধ্যক্ষ তোফাজ্জল হোসেন তুহিনের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি : দি নেক্সটনিউজ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক অধ্যক্ষ তোফাজ্জল হোসেন তুহিনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। সিনিয়র সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রতিবাদে টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতী প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা উপজেলা প্রশাসনের সংবাদ বর্জনের কর্মসূচি পালন করেছে। ষড়যন্ত্রমূলক ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জন্য কালিহাতী উপজেলা প্রশাসনকে ১৫ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন স্থানীয় প্রেসক্লাব।অন্যথায় বৃহত্তর কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন তারা। সরজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জাতীয় স্বার্থে ওমান ফেরত এক প্রবাসীর বিষয়ে প্রশাসনকে তথ্য দিয়ে বিপাকে পড়েছেন ইংরেজি দৈনিক “দি ডেইলী নেক্সটনিউজ” পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক তোফাজ্জল হোসেন তুহিন। প্রবাসীর বাড়িতে উপজেলা প্রশাসন আসায় ওই প্রবাসীর স্ত্রী ক্ষীপ্ত হয়ে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা করে দিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে চাঁদা দাবির অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে মামলাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও ভুয়া বলে জানিয়েছেন পত্রিকাটির সম্পাদক ও প্রকাশক। একজন সিনিয়র সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় স্থানীয় সাংবাদিকসহ এলাকাবাসীর মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কালিহাতী প্রেসক্লাব ইতিমধ্যে উপজেলা প্রশাসনের সকল নিউজ বর্জনের ঘোষণাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত ইংরেজি দৈনিক ‘দি নেক্সট নিউজ’ এবং সাপ্তাহিক চাকুরীর পত্রিকা’র প্রকাশক ও সম্পাদক। একই সাথে তিনি একটি কলেজসহ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা এবং অধ্যক্ষ পরিষদ টাঙ্গাইল-এর নির্বাচিত দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক। এছাড়া তিনি সরকার সমর্থিত জাতীয় শিক্ষক সংগঠন স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের কালিহাতী উপজেলা শাখার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি জাতীয় সাংবাদিক সংগঠন বাংলাদেশ নিউজপেপার জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি, ডিপ্লোমা ফিসারিজ ফাউন্ডার ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক।তাঁর বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের তালতলা-মাদারিপাড়া গ্রামে। আর সেই ওমান প্রবাসীর নাম হাফিজুর রহমান দুলাল। তিনি পার্শ্ববর্তী যদুরপাড়া গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে। প্রবাসী দুলালের স্ত্রী রেহেনা পারভীন বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে কালিহাতী থানায় এই মামলাটি দায়ের করেন। সেখানে তিনি করোনা ভাইরাসের গুজব ছড়িয়ে তার কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি ও হুমকি প্রদর্শনের অভিযোগ আনেন তোফাজ্জল হোসেনের বিরুদ্ধে। জানা যায়,গত ৩০ মার্চ এলাকার কয়েকজন গণ্যমান্য ব্যক্তি উক্ত সাংবাদিকের কাছে এসে বলেন যে, যদুরপাড়া গ্রামের হাফিজুর রহমান দুলাল ওমান থেকে এসে হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছেন। তারা বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ফোন করে জানানোর অনুরোধ করেন। তখন সবার ভালোর জন্যই ইউএনও (শামীম আরা নিপা) মহোদয়কে ফোন করলে তিনি নিয়ে ওই বাড়িতে হাজির হন। কিন্তু ওই সময় বাড়িতে দুলালকে না পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তিনি সাংবাদিককে ফোন করে দুলালকে খুঁজে দিতে বলেন। তখনই ওই বাড়ির লোকজন সাংবাদিকের নাম জানতে পারেন। ইউএনও মহোদয় বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর দুলালের স্ত্রী রেহেনা পারভীন ক্ষীপ্ত হয়ে উক্ত সাংবাদিককে ফোন করে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন এবং দেখে নেয়ার হুমকী দেন। তোফাজ্জল হোসেন তুহিন বলেন, অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমি শুধু জাতীয় স্বার্থে প্রশাসনকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে চেয়েছি। এতে প্রবাসী দুলালের স্ত্রী ক্ষীপ্ত হয়ে আমাকে হয়রানী করার অসৎ উদ্দেশ্যে আমার বিরুদ্ধে ভুয়া অভিযোগ এনে মামলা করেছেন। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। তাছাড়া তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে সহযোগিতা করা কি অন্যায়? কালিহাতী থানার ওসি হাসান আল মামুন মামলা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে। এদিকে একজন সিনিয়র সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় স্থানীয় সাংবাদিকসহ এলাকাবাসীর মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। মামলাটিকে সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দিয়ে কালিহাতী প্রেসক্লাব ইতিমধ্যে উপজেলা প্রশাসনের সকল নিউজ বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদের পাশাপাশি অবিলম্বে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবিও জানান তারা। স্থানীয় প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা উপজেলা প্রশাসনকে ১৫ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য। অন্যথায় তারা বৃহত্তর কঠোর কর্মসূচি গ্রহন করবেন বলে জানিয়েছেন।

 

মন্তব্য

মন্তব্য