কলাপাড়ার সাংবাদিক কর্তৃক মহিপুর থানা পুলিশের সকল ইতিবাচক নিউজ বর্জনের ঘোষনা

মো: নূরুল আমিন, কলাপাড়া //

মহিপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ও জিটিভির প্রতিনিধি মনিরুল ইসলামের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘাটনায় দায়ীদের গ্রেফতার করা না হলে মহিপুর থানার সকল ইতিবাচক নিউজ বর্জনের ঘোষনা দিয়েছেন কলাপাড়া উপজেলায় কর্মরত ইলেট্রনিক্স, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার সকল সংবাদকর্মীরা । শুক্রবার দুপুর বারোটায় দিকে কুয়াকাটা মহসড়কের শেখ রাসেল সেতুর উপরে অনুষ্ঠিত সাংবাদিকদের এক মানববন্ধন কর্মসূচী থেকে এ ঘোষনা দেয়া দেয়া হয়। এসময় কলপাড়া প্রেসক্লাব সভাপতি হুমায়ুন কবির, সাবেক সভাপতি সাংবাদিক মেজবাহ উদ্দিন মাননু, কলাপাড়া রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক মিলন সরকার, কুয়াকাটা প্রেসক্লাব সভাপতি মিজানুর রহমান বুলেট, সাধারন সম্পদক কাজী সাঈদ, কলাপাড়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি এসকে রঞ্জন, মহিপুর প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিনসহ আরো অনেকে বক্তব্য রাখেন ।
বক্তারা হামলার নিন্দা জানিয়ে অচিরেই সন্ত্রাসী সোহাগ আকনসহ হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানান। আর যদি সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা না হয়, তাহলে মহিপুর থানার সকল ইতিবাচক নিউজ বর্জন তরা হবে বলেও ঘোষনা করেন। আহত সাংবাদিক মহিপুর প্রেসক্লবের সভাপতি মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, আমি আহত হয়ে বরিশালে চিকিৎসাধীন ছিলাম। এ ঘটনায় আমার ছোট ভাই ফেরদৌস বাদী হয়ে সোহাগ আকন ও রেজাউল আকনসহ আরো অজ্ঞাত ৫ জনের নামে মহিপুর থানায় মামলা করেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন আসমিকে গ্রেফতার করা হয়নি। বরং তারা প্রকাশ্যে ঘোরা ফেরা করছে।
এবিষয়ে মহিপুর থানার ওসি মো.মনিরুজ্জামান জানান, আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
উল্লেখ গত ২৯ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) সন্ধ্যায় মহিপুর আম বাগান এলাকায় নিউজ সংগ্রহ করতে গিয়ে জিটিভির কলাপাড়া-কুয়াকাটা প্রতিনিধি সাংবাদিক মনিররের উপর হামলা চালায় বহুল আলোচিত পর্যটক নির্যাতন মামলার প্রধান আসামী সোহাগ আকন, রেজাউল আকনসহ কালবাহীনির সদস্যরা। এতে সে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে কলাপাড়া হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত ওই রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল পাঠানে হয়।

মন্তব্য

মন্তব্য