ফেসবুকে রনির অপপ্রচারের শিকার ব্যাবসায়ী হাবিবুর রহমান

নিজস্ব প্রতিবেদক :  জীবিকা অর্জনের তাগিদে পরিবারে সচ্ছলতা আনতে বিগত ২২/১০/২০১৯ইং তারিখে
হাবিবুর রহমান হাবিবের মাধ্যমে বৈধ ভিসায় সৌদি আরব পাড়ি জমায় চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্রের
২নং ওয়ার্ডের নুরুন্নাহার ও আব্দুল মালেকের পুত্র নুরুল ইসলাম রনি (২৪)।
প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী রনিকে প্রথমে একটি দোকানের সেলসম্যান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় কিন্তু কিছুদিন কাজ করার পরেই সে নিজের ইচ্ছায় কর্তৃপক্ষের কাউকে না জানিয়ে ওই দোকান থেকে ফিরে আসে। তারপর তার
পরিবারের অনুরোধে পর্যায়ক্রমে রেস্টুরেন্ট, আবাসিক হোটেল, সিসি ক্যামেরা শোরুম ও এসির কাজে নিয়োগ দিলেও সব কাজেই রনি মাত্র কয়েক দিন করে কাজ করে ফিরে আসে। তারপর রনি তার পরিবার ও নিজের ইচ্ছায় রনির এক আত্মীয়ের কাছে চলে যায় এবং তার নিজের ইচ্ছায় একটি ফার্নিচারের কাজে যোগ দেয় কিন্তু ১৫
দিন কাজ করার পর তার আত্নীয়ের কাছ থেকেও অনত্রে পালিয়ে যায়। এরপর থেকেই রনির মা নুরুন নাহার
বিভিন্ন মাধ্যমে হাবিবুর রহমান ও মোঃ ফারুক হোসেনকে হুমকি ধমকি ও মামলার ভয় দেখিয়ে পাঁচ লক্ষ টাকা দাবি করে এবং নুরুন নাহার বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করে। নুরুন নাহারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে
রূপগঞ্জ থানার কর্মরত উপ-পরিদর্শক (এস আই )আব্দুল মুত্তালিব উভয় পক্ষের কিছু লোকের উপস্থিতিতে অভিযোগ তদন্ত করলে নুরুন নাহারের সকল অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়। এর পর থেকেই রনি (সৌদি আরবে অবস্থান রত) হাবিবুর রহমান ও মোঃ ফারুক হোসেন এর ছবি ব্যবহার করে তাদেরকে সম্মানহানি করার জন্য অন্যায়ভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নানা অপপ্রচার ও মিথ্যা তথ্য ছড়াতে থাকে।
এ ব্যাপারে হাবিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ
ও আমাদেরকে বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি ধমকি ও হয়রানি করায় নুরুন নাহার ও তার ছেলে রনির নামে
রূপগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (৯৬০/২১.০২.২০২০ ) করি এবং তাদের নামে আইসিটি আইনে ও মানহানির মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলমান।

মন্তব্য

মন্তব্য