কলাপাড়ায় আবারও আলোচনায় সেই প্রধান শিক্ষক

কলাপাড়া প্রতিনিধি //
জমি বিক্রি করার কথা বলে ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে ১৩ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে এবার আদালতে মামলা হয়েছে কলাপাড়া সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সেই আলোচিত প্রধান শিক্ষক আবদুর রহিমসহ আরও চার জনের বিরুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার কলাপাড়া বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ৪০ দিনের মধ্যে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য কলাপাড়া বিজ্ঞ সহকারি কমিশনার (ভ‚মি) কে দায়িত্ব দিয়েছেন। ব্যবসায়ী মিলন হাওলাদার মামলাটি দায়ের করেন। এতে প্রধান শিক্ষক আবদুর রহিমসহ মোট পাঁচ জনকে আসামী করা হয়। মামলার বিবরনে জানাগেছে, ২০১৬ সালে ৪০ শতক জমি বিক্রি করার কথা বলে ৩০০ টাকার নন জুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে মিলন ও তাঁর এক বন্ধুর নিকট থেকে ১৩ লক্ষ টাকা গ্রহণ করেন ওই প্রধান শিক্ষকসহ আরও চার জন। কিন্তু সময়মত দলিল বা টাকা কোন কিছু না দিয়ে আসামীরা প্রতারণার আশ্রয় গ্রহণ করেন। একজন শিক্ষকের এমন আচরনে বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক আলোচনা ও সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। উল্লেখ্য এর আগে শিক্ষকের দায়িত্বে অবহেলার কারনে দুইটি ভবনের ২য় তলা থেকে তক্তা দিয়ে যাতায়াতের সময় ষষ্ঠ শ্রেনির একজন মেধাবী ছাত্র পরেগিয়ে মারাক্তকভাবে আহত হওয়ার ঘটনায় ওই প্রধান শিক্ষকের ভূমিকা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে। এব্যপারে ওই প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি জানান কাগজ পত্রের একটু ঝামেলার কারনে দলিল দিতে দেরি হয়েছে। তবে টাকার পরিমান যা বলা হয়েছে তার চেয়ে কম।

মন্তব্য

মন্তব্য