আজ সরস্বতী পূজা হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব

অনলাইন ডেস্ক // আজ বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা উদযাপিত হবে। বাণী অর্চনা ও নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিদ্যা, বাণী ও সুরের দেবী সরস্বতীর পূজা শুরু হবে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ হলে সাড়ম্বরে বিদ্যা ও আরাধনার দেবী সরস্বতীর পূজার আয়োজন করা হয়েছে।পূজার অনুষ্ঠানের মধ্যে আছে, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে পূজা শুরু, ১০টা ০১ মিনিটে অঞ্জলি প্রদান, সন্ধ্যায় আরতি। আর আগামীকাল শুক্রবার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় ছিল প্রতিমা স্থাপন। আয়োজকরা মনে করেন, পূজা উপলক্ষে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষ হল প্রাঙ্গনে মিলিত হবেন। বিষয়টিকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির প্রতীক হিসেবেও দেখছেন তারা।
এ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ ও ইনস্টিটিউট জগন্নাথ হল প্রাঙ্গন জুড়ে বিভিন্ন আইডিয়া ও থিমভিত্তিক ৭০টির বেশি মন্ডপ নির্মাণ করা হয়েছে। জগন্নাথ হল উপাসনালয়ে হল প্রশাসনের উদ্যোগে কেন্দ্রীয়ভাবে আয়োজিত একটি পূজা ছাড়াও এই মহোৎসবের বিশেষ আকর্ষণ থাকবে হল পুকুরে চারুকলা অনুষদের তৈরি ৩২ ফুট দীর্ঘ বিশাল আকৃতির একটি প্রতিমা।

স্বরস্বতী পূজার প্রস্তুতি সম্পর্কে জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ মিহির লাল সাহা দ্য ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, হল প্রশাসন এবং হল সংসদের সমন্বয়ে আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের কাজ প্রায় শেষ আর বাকি যে কাজগুলো রয়েছে তা কিভাবে করব এবং সরস্বতী পূজা উৎসবকে সার্বজনীন রূপ দান করতে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা (হল প্রশাসন) ও হল সংসদ সমন্বিত মিটিংয়ে বসেছি। কিভাবে শৃংখলার সাথে পূজা উপহার দিতে পারি তা আমরা আমাদের বৈঠকে আলোচনা করব।
পূজার কাজে নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবক সৈকত গুপ্ত রকি বলেন, আমাদের স্বরস্বতী পূজার কাজ প্রায় শেষের দিকে। বাকি যে কাজগুলো রয়েছে তা পূজার আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু হওয়ার আগে শেষ করতে পারবো। আমরা বিভিন্ন বিভাগের যারা স্বেচ্ছাসেবক রয়েছি তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। তিনি আরও বলেন, আবহাওয়া যদি অনুকূলে থাকে তাহলে আমাদের উৎসব উৎফুল্ল, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির সঙ্গে পূজা পালন হবে।
জানা যায়, জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিহির লাল সাহাকে প্রধান ও আবাসিক শিক্ষক ড. দেবপ্রসাদ দাঁ’কে আহবায়ক করে চার সদস্য বিশিষ্ট সরস্বতী পূজা উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়েছে। পূজা উদযাপন কমিটিতে আরও আছেন জগন্নাথ হলের আবাসিক শিক্ষক ড. রতন চন্দ্র ঘোষ, জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের ভিপি উৎপল দাশ ও জিএস কাজল দাস।

মন্তব্য

মন্তব্য