তেঁতুলিয়ায় পুলিশ- শ্রমিককের সংঘর্ষে থানায় মামলা

মুহম্মদ তরিকুল ইসলাম, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড় জেলাধীন তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুরে পাথর-শ্রমিকদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ২৬ জানুয়ারি/২০ রবিবার সকাল সাড়ে ৯ টায় সমতল ভূমিতে মাটি খনন করে পাথর উত্তোলন করার দাবিতে পাথর শ্রমিকরা ভজনপুর বাজারের পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়ক অবরোধের ডাক দেয় উপজেলার পাথর ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা। এসময় পুলিশ ও শ্রমিকের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করেন।
এতে ভজনপুরের গোনাগছ গ্রামের জুমার উদ্দিন (৫৫) নামে এক শ্রমিক নিহত হন ও ৮ পুলিশ সদস্যসহ আহত হয় প্রায় অর্ধশতাধিক। নিহত জুমার উদ্দিন তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর ইউনিয়নের গনাগছ এলাকার দেবারু মোহাম্মদের ছেলে। আহতদের মধ্যে অনেককে প গড় আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল এবং গুরুতর আহত তিনজনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
পাথর-শ্রমিকদেও সংঘর্ষ ঘটনার প্রেক্ষিতে জানা যায়, রবিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর পর্যন্ত প গড়-তেঁতুলিয়া মহাসড়কের ভজনপুর এলাকায় অঘোষিত ভাবে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে মাটি কাটা ও পাথর উত্তোলনকারী শ্রমিক এবং পাথর ব্যবসায়ীরা। এসময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ২টি গাড়ি ও র‌্যাবের ১টি গাড়ি ভাংচুর করলে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করেন। এতে করে প্রায় ৫ ঘন্টা উত্তাপ বিরাজ করে পুরো এলাকা জুড়ে । সকাল থেকেই ভজনপুরের সকল প্রকার দোকানপাট ও যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।

এদিকে পঞ্চগড় পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন , আমরা প্রায় ৫ ঘন্টার চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি। পরিস্থিতি সামাল দিতে আমাদের একপ্রকার লাঠিচার্জ ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করতে হয়েছে। এঘটনায় ৮জন পুলিশসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিক আহত হয়েছে।

এ ব্যাপারে তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) জহুরুল হক-এর সঙ্গে মুঠোফনে ফোন করলে তিনি জানান, উক্ত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনার দিনই একটি মামলা থানায় দায়ের করা হয়েছে এবং পরের দিন অর্থাৎ ২৭ জানুয়ারি/২০ আরেকটি আলাদা মামলা করা হয়েছে। এ দু’টো মামলায় অবৈধভাবে পাথর খননকারী প গড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়ক অবরোধের ডাক দেয়া ব্যক্তিদের প্রায় ৪হাজার থেকে ৫ হাজার অজ্ঞাত আসামী করিয়ে মামলা করা হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য