দুই দলের প্রার্থীরাই এ সিদ্ধান্তের জন্য নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানান। ঢাকা উত্তর সিটিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। বিভিন্ন ধর্ম মিলিয়েই আমরা একসাথে বসবাস করি। আমি মনে করি ইসির আরো আগে এটি করা উচিত ছিলো।’
বিএনপি প্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘জনগণের মধ্যে কিন্তু ক্ষোভ আছে। বিশেষ করে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উপরে যে আঘাত হানা হয়েছে, তার প্রেক্ষিতেই তারা বাধ্য হয়ে একটি আন্দোলন গড়ে একটি ন্যায্য দাবি প্রতিষ্ঠা করেছেন।
ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে বিএনপির প্রার্থী ইশরাক হোসেন বলেন, ‘আমি বলেছিলাম ভোটের তারিখ হয় একদিন এগিয়ে দেয়া হোক না হয় পিছিয়ে দেয়া হোক। নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন করে ইসি বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছে।’
আওয়ামী লীগের প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে নির্বাচন না পিছিয়ে বরং এগিয়ে আনলে বেশি ভালো হতো।

মন্তব্য

মন্তব্য