শ্রীপুরে ১০ দিনে ২৮ গরু চুরি, রাত জেগে কৃষকদের গরু পাহাড়া

সাইফুল আলম সুমন, নিজস্ব প্রতিবেদক:
গাজীপুরের শ্রীপুরে গত দশ দিনে পাঁচ কৃষক ও এক ইউপি সদস্যর ২৮টি গরু চুরি হয়েছে। ৭ জানুয়ারী থেকে ১৪ জানুয়ারী পর্যন্ত উপজেলার মাওনা, ধনুয়া ও গাজীপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে এসব গরু চুরির ঘটনা ঘটে। এসব চুরির ঘটনায় কৃষকদের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয় ফলে রাত জেগে গরু পাহাড়া দিচ্ছে কৃষকরা । গরু চুরির ঘটনায় শ্রীপুর থানায় মামলা হলেও পুলিশ এ পর্যন্ত তিন গরু চোরকে গ্রেপ্তার করতে পারলেও চুরি হওয়া গরু উদ্ধার করতে পারেনি।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো নেত্রকেনার কলমাকান্দা উপজেলার শিংপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদিরের ছেলে হোসেন আলী (৫৫), ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার মেদুয়ারী গ্রামের আসাদুল ইসলামের ছেলে মাজহারুল ইসলাম (৩৫) ও ত্রিশাল উপজেলার হরিরামপুর গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে বেলাল মিয়া (৩০)।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নয়ন ভূইয়া জানান, গ্রেপ্তারকৃতরা একটি সঙ্গবদ্ধ গরু চোর চক্রের সদস্য। তাদেরকে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে বুধবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার গোসিঙ্গা ইউনিয়নের হায়াতখারচালা গ্রামের কৃষক আনোয়ার হোসেনের দেড় লাখ টাকা মূল্যের একটি বাছুরসহ গাভী ও পাশের বাড়ির কৃষক গোলাম মোস্তফার এক লাখ টাকা মূল্যের দুটি ষাঁড় গরু চুরি হয়ে যায়। কৃষক আনোয়ার হোসেন জানান, রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টায় গোয়াল ঘরে তালা দিয়ে ঘুমাতে যান। সকালে গোয়াল ঘর থেকে গরু বের করতে গিয়ে দেখতে পায় তালা কাটা এবং গরু গুলো নাই। পরে আমার চিৎকার শুনে পাশের বাড়ির কৃষক মোস্তফা দৌড়ে এসে বলে তার গোয়াল ঘরের তালা কেটে চোর দুইটি গরু নিয়ে গেছে।

অপরদিকে, রবিবার (১২ জানুয়ারী) মধ্য রাতে উপজেলার সিংগারদিঘী গ্রামের কৃষক ও মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য প্যানেল চেয়ারম্যান মতিউর রহমানের ১০টি গরু চুরি হয়েছে। তিনি জানান, প্রতিদিনের মতো রাত ১২টার দিকে গোয়ালঘরে তালা দিয়ে ঘুমাতে যান। ভোরে ঘুম থেকে উঠলে কাজের ছেলে মুনছুর আলী তাকে জানান গোয়াল ঘরে একটি গরুও নাই। রাতের কোন এক সময় চোর তালা ভেঙ্গে ১০টি গরু চুরি করে নিয়ে যায়। চুরি যাওয়া গরুর মধ্যে ৩টি অস্ট্রেলিয়ান বাছুরসহ ৩টি গাভী ও চারটি ষাঁড় গরু রয়েছে। গরুগুলোর আনুমানিক মূল্য ১০ লাখ টাকা হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

একই গ্রামের কৃষক হারুন ফরাজি জানান, ১০ জানুয়ারী কৃষক হারুন ফরাজি ও তার শশুরের ৪টি গরু চুরি হয়। মধ্য রাতে গোয়াল ঘরে তালা দিয়ে ঘুমাতে যান। পরে সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখতে পার গোয়াল ঘরের তালা ভেঙ্গে চুর গরু নিয়ে গেছে। এর মধ্যে দুইটি দেশী গাভী ও দুইটি হালের বলদ রয়েছে। চুরি যাওয়া গরুগুলোর আনুমানিক মূল্য ৩লাখ ২০ হাজার টাকা।

গাজীপুর ইউনিয়নের ধনুয়া গ্রামের ছাবেদ আলী মাদবর জানান, ৭ জানুয়ারী দিবাগত মধ্য রাতে তার গোয়াল ঘর থেকে ৭টি গরু চুরি হয়ে গেছে। এর মধ্যে ৪টি অস্ট্রেলিয়ান ষাঁড় ও ৩টি দেশী হালের বলদ রয়েছে। চুরি যাওয়া গরুগুলোর আনুমানিক মূল্য ৬লাখ টাকা।

একই রাতে পাশের দক্ষিণ ধনুয়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ৩টি গরু চুরি হয়েছে। এর মধ্যে দুইটি হালের বলদ ও একটি দেশী গাভী রয়েছে। চুরি যাওয়া গরুগুলোর আনুমনিক মূল্য দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী জানান, গরু চোর ধরতে পুলিশ নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রাখছে। এসব ঘটনায় পুলিশ মঙ্গলবার রাতে তিন গরু চোরকে গ্রেপ্তার করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা গরু চুরির কথা স্বীকার করেছে।

মন্তব্য

মন্তব্য