কুয়াকাটায় আওয়ামী লীগ এবং পৌর মেয়রকে নিয়ে অপপ্রচারে নেমেছে একটি বিরোধীমহল – সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ


মো: শহিদুল ইসলাম, কলাপাড়া:
কুয়াকাটায় আওয়ামী লীগ ও কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আব্দুল বারেক মোল্লাকে নিয়ে একটি মহলের ষড়যন্ত্র চলছে, এমন অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় কুয়াকাটা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আওয়ামী লীগ কর্মী ও ব্যবসায়ী বেল্লাল মোল্লা। তিনি লিখিত বক্তব্যে দাবি করেছেন কুয়াকাটায় তার ক্রয় করা জমিতে কিছু দোকানপাট করেছেন। কিছু অংশে ২০১১ সাল থেকে কুয়াকাটা পৌর আওয়ামী লীগের অফিস ঘর ভাড়া নেয়। ওই জায়গার তিনি ভরাট করে নতুন কিছু দোকাপাট করেছেন। পাশাপাশি আওয়ামী লীগের অফিসঘর সংস্কার করে নতুন করে তাঁদের কাছে ভাড়া দেয়া রয়েছে। একটি বিরোধী মহল এনিয়ে অপপ্রচার শুরু করেছে। বেল্লালের অভিযোগ, জমির মালিক আমি থাকা সত্তে¡ও কুয়াকাটার মেয়র তথা আওয়ামী লীগের নেতা আব্দুল মোল্লাকে ওই জমির মালিক বলে প্রচার চালানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে ওই জমি মেয়র দখল করেছেন। প্রকৃতঅর্থে এক বছর পরে মেয়র নির্বাচনে যাতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কিংবা দলীয় ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করা যায় এটি এর একটি অংশ। সুপরিকল্পিতভাবে কুয়াকাটার উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে চিহ্নিত আওয়ামী লীগ বিরোধী মানসিকতার একটি চক্র এখনই মাঠে নেমেছে। এরা গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে চলেছে। এ ব্যাপারে পৌর মেয়র আব্দুল বারেক মোল্লা জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগে কুয়াকাটাকে পৌরসভায় উন্নীত করেন। চলছে পর্যটনকেন্দ্রীক ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড। পৌরবাসীকে পিউরিফাইড পানি সরবরাহ দেয়ার কাজ চলমান। ড্রেনেজ ব্যবস্থার কার্যক্রম চলছে। রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, বাসস্ট্যান্ড নির্মাণ, পৌরসভার ভবন নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। এসব উন্নয়নে আওয়ামী লীগের সুনাম বৃদ্ধি পেয়েছে। জনপ্রিয়তা বেড়েছে প্রধানমন্ত্রীর এবং আওয়ামী লীগের। একারনে আগামি পৌরসভার নির্বাচন না আসতেই বিএনপিসহ একটি নব্য হাইব্রিডচক্র ষড়যন্ত্রে নেমেছে। মিথ্যা অপপ্রচারে নেমেছে ওই চক্র। বর্তমানে এচক্রের অপপ্রচার রুখতে মূলত প্রকৃত তথ্য কুয়াকাটা পৌরবাসীর সামনে তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে এসময় উপস্থিত ছিলেন, লতাচাপলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও কুয়াকাটা পৌর মেয়রের ভাই মো. আনছার উদ্দিন মোল্লা,মহিপুর থানা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মেয়র পুত্র মাসুদ রানা,পৌর যুবলীগের আহবায়ক মোঃ ইসাহাক শেখ, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মো.মজিবর রহমান, ঘর ভাড়াটিয়া মোঃ আনোয়ার হোসেন, বেল্লাল খলিফা, মোঃ মহসিন মিলন সহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মিরা।
সংবাদ সম্মেলনে বেল্লাল মোল্লার ভাড়াটিয়া ঘর মালিক মোঃ আনোয়ার হোসেন, বেল্লাল খলিফা, মোঃ মহসিন মিলন বলেন, আমরা ঘর ভাড়া নিয়েছি বেল্লাল মোল্লার কাছ থেকে। সেখানে একটি পত্রিকায় মেয়রের কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছি বলে আমাদের সাক্ষাৎকার ছাপা হয়েছে। যা সত্য নয়। এ বিষয়ে আমাদের কোন সাংবাদিক বন্ধুর সঙ্গে কথা হয়নি।
লতাচাপলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লা বলেন, জাতীয় পার্টি সহ বিভিন্ন দল থেকে অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে কুয়াকাটা পৌর কাউন্সিল মোঃ শাহ আলম হাওলাদার জমি দখল সহ সালিশ বানিজ্য করছে। তিনি আরো বলেন, কাউন্সিলর শাহ আলম সরকারি জমি দখল করে মরিয়ম হোটেল নামে একটি আবাসিক হোটেল করেন। এসবে পৌর মেয়র বাধা দিলে তারা মেয়রের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের কাছে ভূল তথ্যসহ নানা ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য