পটুয়াখালীতে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষনের আসামী হরিদাস গ্রেফতার

নাসির উদ্দিন (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
পটুয়াখালীর দশমিনায় প্রতিবন্ধী পুতুল রানী (৩৫) ধর্ষনের আসামী হরিদাস কে গ্রেফতার করেছে দশমিনা থানা পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার সকাল আনুমানিক ৯ টাকার দিকে আলিপুরা ইউনিয়নের খলিসাখালী গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে। এ বিষয় দশমিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম জালাল উদ্দিন বলেন হরিদাস কে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালতে প্রেরন করা হবে। দশমিনা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ধর্ষন মামলার আসামী হরিদাস কে পটুয়াখালী জেল হাজতে প্রেরন করেন। উল্লেখ্য গত ০৬ অক্টোবর ২০১৯ প্রতিবন্দী নারীকে ধর্ষন করায় দশমিনা থানায় একটি মামলা হয়। পতুল রানী হচ্ছেন উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের খইশাখালী গ্রামের দেবিন্দ্র দাসের মেয়ে । ধর্ষনকারী হচ্ছেন একই গ্রামের হরেন্দ্র দাসের ছেলে হরিদাস (৫৫)। ৬ অক্টোবর রোববার প্রতিবন্ধী পুতুলের মা রেনু বালা জানান, শনিবার বিকেল আনুমানিক ৫ টার দিকে প্রতিবন্ধী মেয়েকে ঘরে রেখে পাশের বাড়িতে গেলে সেই সুযোগে হরিদাস আমার প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষন করে। আমি ঘটনাটি দেখে ফেললে আমাকে হুমকী দিয়ে তরিগরি করে পালিয়ে যায়। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে জানা জানি হলে আমি কোন কিছু উপায় না বুঝে ঐ রাতেই দশমিনা সদর হাসপাতালে নিয়া গেলে ডাক্তার ও নার্স এসে আমার মেয়েকে পটুয়াখালী পাঠিয়ে দেয় । বর্তমানে আমার মেয়ে পটুয়াখালী হাসপাতালে ভর্তি আছে বলে প্রতিবেদককে জানান। পটুয়াখালী সদর হাসপাতালের ডাক্তার সেলিম মাতব্বর বলেন, মেয়ের গায়ে অনেক আঘাতের চিহ্ন আছে এবং আমার চিকিৎসাধীনে হাসপাতালে ভর্তি আছে। এ বিষয়ে হরিদাসের ভাই কালীপদ ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য বিভিন্ন দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এ প্রতিবন্ধী পুতুল রাণী ধর্ষনের বিষয় আলীপুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাদশাহ ফয়সাল ও ইউপি সদস্য আফজাল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

মন্তব্য

মন্তব্য