আশুলিয়ায় পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির ঘটনায় সন্দেহভাজন ৫ ডাকাত আটক

বিনয় কৃষ্ণ মন্ডল,আশুলিয়া থেকেঃ

রাজধানীর উপ কন্ঠে শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকায় পুলিশ পরিচয়ে এক বাসায় ডাকাতি করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের ঘটনায়
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি চালকসহ সন্দেহভাজন ৫ ডাকাতকেআটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ব্যবহৃত একটি হাইয়েস মাইক্রোবাস
(ঢাকা মেট্রো-চ ১৫৭৫৭৭) জব্দ করা হয়েছে।
শনিবার রাতভর অভিযান চালিয়ে আসামীদের আটক করে পুলিশ। এর আগে শুক্রবার দিবাগত রাতে আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকার শেখ আমিনের বাসায় এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।
আটককৃতরা হলো-জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ি চালক বাবুল হোসেন, শেরপুরের নকলা চর ভাবনা গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে হুমায়ুন
কবীর, আশুলিয়ার গেরুয়া এলাকার মৃত সামাদ মৃধার ছেলে শাকিল মৃধা, একই এলাকার মৃত আকবর আলীর ছেলে মাসুদ এবং মৃত শাহ
আলমের ছেলে শাহিনুর ইসলাম। ভুক্তভোগী শেখ আমিন জানান, রাতে পুলিশের পোশাক পড়া ৫ থেকে ৬ জন তার বাসায় ঢুকে মামলার ওয়ারেন্ট আছে বলে পরিবারের সদস্যদের জিম্মি করে তল্লাসীর নামে নগদ দুই লাখ ৫৫ হাজার টাকা ও তিন ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে। এসময় তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে
ডাকাতরা পালিয়ে যায়। এদিকে, আটক ৫ জনের মধ্যে ৩ জনকে চিনতে পেরেছেন বলে দাবী করেন তিনি।
এ ঘটনায় শেখ আমিনের প্রতিবেশি রুবেল জানান, রাতে কয়েকজন তার বাড়িতে এসে তাকে ডেকে নিয়ে যায়। নিজেদের পুলিশ পরিচয়ে দিয়ে
পরিহিত পোশাক দেখিয়ে তারা বলে, শেখ আমিনের নামে মামলা আছে। আমরা তাকে ধরতে যাচ্ছি। প্রয়োজন হলে ডাকবো। আপনি বাড়িতে
ভিতরে চলে যান।রুবেল আরও জানান, আমি ভয় পেয়ে বাড়ির ভিতরে চলে যাই। কিছুক্ষণ পর শেখ আমিনের বাড়ি থেকে ডাক চিৎকার শুনতে পেয়ে প্রতিবেশীদের
নিয়ে সেখানে যাই। এসময় আমিনের ঘরের দরজা বাইরে থেকে দেখতে পাই। পরে দরজা খুলে শেখ আমিনসহ তার পরিবারকে উদ্ধার করি।
এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ। পরে রাতভর অভিযান চালিয়ে
আসামীদের আটক করা হয়। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় মামলা দায়েরের পাশাপাশি আরও কেউ জড়িত রয়েছে কি না তার তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য

মন্তব্য