প্রসুতি মা কে মুর্দারের খাটিয়ায় গ্রাম বাসী হাসপাতাল নিয়েছে

মো: জহিরুল ইসলাম (পাশা) //
কুমিল্লা তিতাস উপজেলা বলরামপুর গ্রামে গ্রসুতি সোনিয়া কে মুর্দারের খাটে করে হাস পাতালে নিল গ্রাম বাসসী গত ২৯/ ১০/২০১৯ইং রোজ মুঙ্গল বার রাত ৮ ঘটিকার সময় প্রসূতি মায়ের ব্যাথা উঠলে রাস্তায় যানবাহন চলাচলের অযোগ্য বিদায়, মসজিদের মুর্দারের খাটিয়ায় করে প্রসূতি মাকে প্রায় ২ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে পাংঙ্গাশিয়া এসে যানবাহন এর মাধ্যমে তিতাস সদড় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে প্রসুতি মায়ের চিকিস্যা দেওয়া হয়, খাটিয়ার ছবি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।বলরামপুর গ্রামের তরুণ ছাত্রনেতাে তিতাস উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন জানান আমার প্রতিবেশি প্রসুতি মা সোনিয়ার (২৫) রাত ৮ টার দিকে প্রসব ব্যাথা উঠে তাৎক্ষনিক ভাবে সড়ক পথে যোগাযোগ ব্যাবস্থা না থাকায় কোন উপায়ন্তর না পেয়ে মসজিদ থেকে খাটিয়া এনে হাসপাতালে নিতে বাধ্য হই। মহান আল্লাহর রহমতে প্রসূতি মা এখন সুস্থ আছেন প্রসূতির স্বজন শাহআলম জানান এভাবে আর কতদিন কত রাত মুর্দারের খাটিয়া করে আমরা রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যাব। এ ব্যাপারে বলরামপুর গ্রামের একাধিক ভুক্তভোগী জানান পাংঙ্গাশিয়া থেকে দক্ষিন বলরামপুর নয়াবাজার পর্যন্ত একটি গুরুত্ব পুর্ন সড়ক। এ সড়কটি দিয়ে দৈনিক প্রায় ৩ শতাধিক ছাত্র/ ছাত্রী পায়ে হেটে মাছিমপুর আর আর উচ্চ বিদ্যালয়ে যেতে হয়, ৩ থেকে ৪ হাজার মানুষ নিত্যদিন মাছিমপুর অথবা বাতাকান্দি যেতে হয় পায়ে হেটে। এব্যাপারে মাছিমপুর আর আর উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য মো: কবির কতুব বলেন এ রাস্তাটি সংস্কার করা প্রয়োজন কুমিল্লা ২ হোমনা তিতাসের উন্নয়ের রুপকার সেলিমা আহমাদ মেরী এমপি ( সি আইপি) সু দৃস্টি কামনা করছি। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগের যুগ্ন আহহ্বায়ক তিতাস উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক মো: নুরুনবী দৈনিক দিন প্রতিদিনের তিতাস প্রতিনিধিকে বললেন পাংঙ্গাশিয়া থেকে দক্ষিন বলরামপুর নয়াবাজার পর্যন্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক বছরের পর বছর ধরে বেহালদশায় পড়ে ছিল সড়কটি আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর ধেকে এ সড়কটিতে কয়েক বার মাটির কাজ করে, সি এন জি চলার মত ব্যাবস্থা করেছি। কিন্তু অল্প বৃষ্টি হলেই এ সড়কটিতে কাদা আর বড় বড় গর্তে পরিনত হয়ে যায়। যার ফলশ্রুতিতে সি এনজি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে একাধিবার এলজিআরডি অফিসে সড়কটি পাকা করনের জন্য আবেদন করেও কোন সারা পাইনি কিন্তু কয়েক মাস পুর্বে উত্তর বলরামপুর মাদ্রসা মাঠে আমাদের সকলের প্রিয় জননেত্রী শেখ হাসিনার আর্শিবাদ পুষ্ঠ উন্নয়নের রোলমডেল সেলিমা আহামাদ মেরী এমপি ( সি আই পি) সরজমিনে গিয়ে এ সড়কটি পরিদর্শন করেন এবং তাৎক্ষনিক ভাবে এ সড়কটি পাকা করনের জন্য উপজেলা ইন্জিনিয়ারের বুকে এন্টি করার নির্দেশ দেন। ইনশাল্লাহ অচীরেই আমাদের উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো: পারভেজ হোসেন সরকার এবং এমপি মহোদয়ের উপস্থিতেতে উপজেলা সমন্বয় মিটিংএ এ সড়কটি পাকাকরনের ব্যাপারে আলোচনা করব।

মন্তব্য

মন্তব্য