কুড়িগ্রামে মানব দেহের খন্ডিত অংশ(পা) ও উলিপুরে পল্লী চিকিৎসকের মরদেহ উদ্ধার

সাইফুর রহমান শামীম, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি //
কুড়িগ্রাম সদরের বেলগাছা ইউনিয়নের পশ্চিম কল্যান এলাকা থেকে মানব দেহের খন্ডিত অংশ(কোমর থেকে পায়ের নীচের অংশ) উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপরদিকে উলিপুর উপজেলার সাহেবের আলগা ইউনিয়নের সোনাপুর বাজারের নিকট ধান ক্ষেত থেকে একটি মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, সোমবার সকালে সদর পশ্চিম কল্যান এলাকার মোস্তাফিজার রহমানের বাড়ীর পার্শ্বের পুকুর পাড়ে পলিথিনে মোড়ানো অর্ধ গলিত মানুষের একটি পা পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে তা উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। তবে সেটি কার এবং কিভাবে এখানে এলো তা জানা যায়নি।
স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জানান, ইউনিয়ন পরিষদ হতে সামান্য দুরে পুকুর পাড় হতে মানুষের পা উদ্ধারের খবর শুনে প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করেছি। আমি চাই দ্রæত সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করা হোক।
কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহফুজুর রহমান জানা, যেহেতু কোমরের অংশ থেকে পায়ের পাতা পর্যন্ত অর্ধ গলিত অবস্থায় এটি পাওয়া গেছে সেক্ষেত্রে মনে হচ্ছে এটি কোন হত্যাকান্ডের ঘটনা হয়ে থাকতে পারে। আমরা তদন্ত করে বিস্তারিত জানাতে পারবো।
অন্যদিকে উলিপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, সোমবার সকালে সাহেবের আলগা ইউনিয়নের সোনাপুর বাজারের নিকট ধান ক্ষেত থেকে পল্লী চিকিৎসক জয়নাল আবেদীনের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানো হয়েছে।
সোমবার সকালে পল্লী চিকিৎসক জয়নালের বাড়ির পাশে একটি ধান ক্ষেতে তার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় পথচারীরা। পরে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। নিহত জয়নালের শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানায় প্রত্যক্ষদর্শীরা।

মন্তব্য

মন্তব্য