বান্দরবানের রুমা উপজেলায় বন্যা ভূমিধসে  ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে অর্থ সহায়তা প্রদান

ডেভিড সাহা,বান্দরবান জেলাঃ
বর্তমান সরকার, উপজেলা প্রশাসন ও এনজিও বিভিন্ন দপ্তরের দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে এবং ক্ষতিগ্রস্তদের শর্তহীন নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেছে। যে কোন দুর্যোগের সময় সরকারের সতর্ক বার্তা মেনে চলা এবং আশ্রয় কেন্দ্রে চলে আসার আহবান জানান। ভারী বর্ষণ টানা বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমি ধসে পাহাড় ধসসহ বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ১৯০ পরিবারকে শর্তহীণ নগদ অর্থ প্রদানের সময় উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন অতিথিরা।
বান্দরবানে রুমা উপজেলার পাইন্দু ইউনিয়নের ১৯০ পরিবার পেল শর্তহীণ নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান ও বিতরন আজ বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে পৃথক ভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এসময় প্রতি পরিবারকে ৫ হাজার ৫শত টাকা ছাড়াও প্রতিবন্ধি পরিবার হিসেবে চিহিৃত ১ শত পরিবারকে ৬ হাজার ৫শত টাকা করে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে ।
জাতীয় বেসরকারি সংস্থা কারিতাস বাংলাদেশ চট্টগ্রাম অঞ্চল, স্থানীয় এনজিও সংস্থা তৈমু ও ইউএসএআইডি অর্থায়নের পার্বত্য চট্টগ্রামে পরিচালিত স্যাপলিং প্রকল্পের আওতায়, বান্দরবান বন্যার ক্ষতিগ্রস্ত মাঝে সাড়াদান কর্মসূচী আওতায় এই সহায়তা দেয়া হচ্ছে।
রুমা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে পাইন্দু ইউনিয়নে  মানবিক সহায়তা প্রদানের সময় উপস্তিত ছিলেন।  উপজেলা চেয়ারম্যান বাবু উহ্লাচিং মার্মা, ও রুমা উপজেলা নিরবাহী কর্মকর্তা, শামসুল আলম বিশেষ অতিথি, ভাইস চেয়ারম্যান বাবু  থাংখামলিয়াম বম,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুম্রাউ মার্মা,পাইন্দু ইউপি চেয়ারম্যান বাবু উহ্লামং মার্মা।ও সকল ওয়ার্ড মেম্বারগণ,এবং অএ এলাকার হেডম্যান,কার্বারী,গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন । এছাড়া কারিতাস,তৈমু,স্যাপ্লিং এর কর্মকর্তা ও কর্মীগণ সার্বিকতত্ত্বাবধানে নিয়োজিত।
পরিচালক রিপন চাকমা জানান, চলতি জুন মাসের ৬ তারিখ থেকে ১৫ তারিখ পর্যন্ত টানা ১০দিন প্রর্বল বর্ষনের ফলে আকস্মিক বন্যা ভূমিধস বান্দরবান জেলা ৬টি উপজেলায় প্রায় দেড় লক্ষাধিক পরিবার (প্রায়)ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বান্দরবান জেলার থানচি, রুমা, রোয়াংছড়ি উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মোট ২ লক্ষ ১শত পরিবারকে শর্তহীণ নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন।

মন্তব্য

মন্তব্য