ধর্মী প্রতিষ্ঠানের নামে ভূমিহীন পাহাড়ি বাংঙ্গালি অসহায় মানুষের ভূমি জোরপূর্বক দখল।

ডেভিড সাহা, বান্দরবান জেলা :
বান্দরবানের বৌদ্ধ মন্দিরের নামে দখলকৃত খ্রীস্টানদের মিশনের জমি ও বিভিন্ন পাহাড়ি /বাংঙ্গালি পরিবারের ভিটামাটি ফেরতের দাবীতে মানববন্ধন করেছে বড়ুয়া ও খ্রীস্টধর্ম সম্প্রদায়সহ ভুক্তভোগী নিরহ জনগণ।
৩১ জুলাই রোজ বুধবার সকালে বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে  বড়ুয়া ও খ্রিস্টান ধর্মালম্বী কয়েকশ নারী পুরুষ অংশ নেয়।
মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ২০ বছর আগে রোয়াংছড়ি উপজেলার ক্যাথলিক মিশনের নামে সাত একর জায়গা কেনা হয়। পরে স্বর্ণমন্দির প্রতিষ্ঠাতা ও রাজগুরু বিহারাধাক্ষ্য উ পঞঞা জোত মহাথের উচহ্লা ভান্তে তা বৌদ্ধ মন্দিরের নামে দখল করে নেয়। বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ করার পরেও তিনি আর জমি আর ফেরত দিচ্ছে না। এছাড়াও সেখানে অনেক পরিবারের জায়গা রয়েছে সেগুলোও মন্দিরের নামে দখল করে নেয়া হয়েছে। এরফলে অনেকে পরিবারের ভিটেমাটি ছাড়তে হয়েছে। তাই তারা মানব বন্ধন করেছেন। যদি এর পরও কোন কাজ না হয় তবে তারা আরো কঠোর কর্মসূচী দেয়ার ঘোষনা দেন। এসময় মানব বন্ধনে অংশ নিয়ে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম ক্যাথলিক চার্চের ফাদার জেরোম রোজারিও, পৌর কাউন্সিলর দীলিপ বড়ুয়া ও মৌজা হেডম্যান নুমংপ্রু মারমাসহ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, বান্দরবানের কালাঘাটায় বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরু উ পঞঞা জোত মহাথের উচহ্লা ভান্তে একটি রাম জাদি নির্মাণ করেন। মন্দিরের আশে পাশে খ্রীস্টান মিশনারিজসহ বড়ুয়া সম্প্রদায়ের বিভিন্ন ব্যাক্তির জায়গা রয়েছে যা মন্দিরের নামে জোরপূর্বক দখল করে রাখা হয়েছে বলে দাবী করেন খ্রীস্টান ও বড়ুয়া সম্প্রদায়ের নেতারা। এর আগে জায়গা ফেরত চেয়ে তারা সংবাদ সম্মেলন ও করে।কিন্ত তাতেও কোন ফল পান নি তারা।

মন্তব্য

মন্তব্য