কালীগঞ্জের নিখোঁজ কৃষক অচেতন অবস্থায় উদ্ধার

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি
গরু কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া কালীগঞ্জের কৃষক আসাদ মোল্লাকে অচেতন ও অক্ষত অবস্থায় গাজীপুরের কাঁচা বাজারের আড়ত থেকে এক জনৈক সিএনজি চালক উদ্ধার করে তার বাড়িতে পৌছে দিয়েছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে। সোমবার রাতে উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের বিন্দান গ্রামের জনৈক সিএনজি চালক পেঁয়াজ কিনতে গাজীপুরের কাঁচাবাজার আড়তে গেলে রাস্তার পাশে ওই কৃষক অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। নিখোঁজ হওয়া ওই কৃষককে চালক চিনতে পেরে তাকে সেখান থেকে সিএনজিতে তুলে রাতে তার নিজ বাড়িতে পৌছিয়ে দিয়েছে বলে কৃষকের বড় ভাই আরমান মোল্লা বিষয়টি জানান।
বড় ভাই আরমান মোল্লা বলেন, তার ভাই আসাদ মোল্লাকে গতকাল মঙ্গলবার সকালে চিকিৎসার জন্য পূবাইল থানার মাজুখান এলাকায় করমতলা হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। নাগরী ইউনিয়নের বিন্দান গ্রামের জনৈক সিএনজি চালক তার ভাইকে গাজীপুরের কাঁচাবাজারের আড়ত থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। উদ্ধারের সময় তার ভাইয়ের পরনে গেঞ্জি ও শর্ট প্যান্ট পরিহিত ছিল। তার নাকে ও হাঁটুতে আঘাতের চিহৃ রয়েছে। গরু কেনার ১ লাখ টাকা খোয়া গেছে। সে চোখ খুলতে পারছে না, অচেতন অবস্থায় রয়েছে। মলম পাটির খপ্পরে পড়ে তার এমন অবস্থা হয়েছে বলে তার পরিবারের লোকজনের ধারণা। গত শনিবার নাগরী ইউনিয়নের রাথুরা গ্রামের কৃষক আসাদ মোল্লা ১ লাখ টাকা নিয়ে গরু কেনার উদ্দেশ্যে স্থানীয় কয়েকজনের সাথে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানার কাউলতা গরু হাটে গিয়ে সে নিখোঁজ হয়। তাকে না পেয়ে সোমবার তার ভাই আরমান মোল্লা মির্জাপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেন। সোমবার রাতে গাজীপুর থেকে জনৈক সিএনজি চালক ওই কৃষককে অচেতন ও অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে রাথুরা তার বাড়িতে পৌছে দেয়।। নিখোঁজ কৃষকের বাড়ি গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের রাথুরা গ্রামের। সে মো. রহমত আলী মোল্লার ছেলে ।
নিখোঁজের স্ত্রী রহিমা বেগম জানান, তার স্বামীকে পাওয়া গেছে। কিন্তু তার শারিরীক অবস্থা আশঙ্কাজনক। চিকিৎসার জন্য তার স্বামীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মন্তব্য

মন্তব্য