কুমিল্লায় ১০ টাকার লোভ দেখিয়ে চতু্র্থ শ্রেনির ছাত্রীকে ধর্ষন।


মোঃ গোলাম মোস্তফা, বিশেষ প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম:

কুমিল্লার বরুড়ায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার (২০ জানুয়ারী) রাত ৭ টার দিকে উপজেলার পিলগীরি গ্রামে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার আড্ডা ইউনিয়নের পিলগীরি গ্রামের জসিম উদ্দিনের ছেলে সাব্বির (১৮) রবিবার রাত ৭ টার দিকে ওই এলাকায় অনুষ্ঠেয় মাহফিলের সামনের দোকানে ১০ টাকার হালিম কিনে দিবে বলে একই বাড়ির চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রীকে ডেকে নিয়ে যায়।
পরে তার মুখ চেপে ধরে পাশেই মনিন্দ্র শীলের নির্জন বাড়িতে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। ঘটনার বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়রা ধর্ষক সাব্বিরকে আটক করে।বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার প্রস্তাবে রাতে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আবদুল হালিম তার জিম্বায় ধর্ষক সাব্বিরকে নিয়ে যায়।
সোমবার (২১ জানুয়ারী) বেলা ১১টার দিকে শিশুটিকে বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করে।
মেয়ের মা বলেন, আমার স্বামী প্রতিবন্ধি। আমার চার মেয়ে। আমি মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে সংসার চালাই। আমার মেয়েকে যে ধর্ষণ করেছে আমি তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ৩ ওয়ার্ড মেম্বার ও ওর্য়াড যুবলীগের সভাপতি আবদুল হালিম বলেন, এ ধরনের একটি ঘটনা শুনেছি। তবে আমার জিম্বায় তাকে নেইনি।
এ বিষয়ে বরুড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজম উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ধর্ষনের কোন ঘটনা শুনিনি। তবে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য

মন্তব্য